smc
logo
  • ঢাকা শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭

পাহাড়ে ঝর্ণা দেখতে গিয়ে সাবধানতা অবলম্বন করুন (ভিডিও)

  সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

|  ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৮:০৯ | আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৮:২২
যারা ভ্রমণপিপাসু তারা বারবার ঝর্ণার কোলে ছুটে যায়। মিরসরাই থেকে সীতাকুণ্ডের পথ ধরে এগুলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে অনেকগুলো  অপরূপ ঝর্ণা ।

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড ও মীরসরাইয়ের পাহাড়ে ঝর্ণা আর ঝর্ণা। এই দুই উপজেলায় প্রায় ২০ থেকে ২৫ টি ঝর্ণা রয়েছে। খৈয়াছড়া ঝর্ণা, নাপিত্তাছড়া ঝর্ণা, সুপ্তধারা ঝর্ণা, সহস্রধারা ঝর্ণা, কমলদহ ঝর্ণা, ঝরঝরি ঝর্ণা, হরিণমারা-হাঁটুভাঙ্গা ঝর্ণা, বোয়ালিয়া-বাউশ্যা ঝর্ণা। তাদের মধ্যে খৈয়াছড়া, নাপিত্তাছড়া, সুপ্তধারা ও সহস্রধারা ঝর্ণা অন্যতম।

প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক এসব ঝর্ণা দেখতে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে আসেন। যেখানে সবুজে ঘেরা ঝিরিপথ মেশে রহস্যময় অজানায়। পথচলার ক্লান্তি ধুয়ে দেয় ঝর্ণার গতি।

তবে এসব ঝর্ণাগুলো কখনও কখনও মৃত্যুরও কারণ হতে পারে। তিন বছরে  ঝর্ণাগুলোতে অন্তত ১০ জন নিহত ও অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। এখানে কোনও নিরাপত্তা ব্যবস্থা না থাকায় এসব দুর্ঘটনা ঘটেছে।

পর্যটন এলাকগুলোতে বিপদনজক স্থান নেই কোনও চিহ্নিতকরণ সাইনবোর্ড। খৈয়াছড়া ঝর্ণাটি চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের পাহাড়ে অবস্থিত একটি জলপ্রপাত। নয়টি মূল ধাপ এবং অনেকগুলো বিচ্ছিন্ন ধাপ রয়েছে এই ঝর্ণাটির। দৈর্ঘ্য, প্রস্থ, পানির উচ্চতা এবং প্রাকৃতিক বৈচিত্র্যে এটি দেশের সবচেয়ে বড় আর দুর্গম পাহাড়ের গহীনে অবস্থিত।এজন্য এটিকে বলা হয় বাংলাদেশের ঝর্ণার রাণী। রাতের বেলায় চাঁদের আলোয় ঝর্ণার সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য পাহাড়ের পাদদেশে তাবু টাঙিয়ে অনেকে অবস্থান করেন।

দেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপরূপ নিদর্শন খৈয়াছড়া, নাপিত্তাছড়া ও সুপ্তধারা ঝর্ণা দেখার জন্য প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক আসেন এখানে।

পাহাড়ের গাঁ বেয়ে জলের ধারা মনমুগ্ধকর সৌন্দর্য তৈরি করে নেমে আসে নিচুতে।

কয়েক কিলোমিটার পাহাড়ি ঝিরিপথ পাড়ি দেওয়ার পর সেই ঠাণ্ডা জল জুড়িয়ে দেয় প্রাণ। পথে পথে যেতে যেতে দেখা মিলবে পাহাড় আর ঝিরিপথের নান্দনিক সৌন্দর্য। মাইল চারেক হাঁটার পর কানে ভেসে আসবে ঝর্ণার কলতান। তবে পর্যটকদের আগমন বাড়ার পর ঝর্ণাগুলোর ঝিরিপথ ক্রমশ নোংরা হয়ে যাচ্ছে। তাই অপচনশীল দ্রব্য, এমনকি পারতপক্ষে পচনশীল দ্রব্যও ফেলা উচিত না।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এই জায়গাগুলো আমাদের সকলের সহযোগিতা ছাড়া তার আসল রূপ ধরে রাখতে ব্যর্থ হবে।

ঝর্ণার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে শেষবেলায় যখন পাহাড়ের ওপর উঠে পথ হারিয়ে ফেলি তখনও সবাই দূর থেকে সমুদ্র ঊর্মীমালার এক ঝলক দেখে আনন্দে চিৎকার করে বলেছে এ হলো শেষ বেলার সুখ!

জেবি

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ৪০৩০৭৯ ৩১৯৭৩৩ ৫৮৬১
বিশ্ব ৪,৪৩,৫৭,৬৭১ ৩,২৫,০৫,১৫৫ ১১,৭৩,৮০৮
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • ভ্রমণ এর সর্বশেষ
  • ভ্রমণ এর পাঠক প্রিয়