Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮

ধর্ম ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ২৭ এপ্রিল ২০২১, ২২:১৮
আপডেট : ২৭ এপ্রিল ২০২১, ২২:৩৭

হাজার বছরের যেসব ঐতিহ্য বহন করছে তুরস্কের গ্র্যান্ড বাজার (ভিডিও)

হাজার বছরের যেসব ঐতিহ্য বহন করছে তুরস্কের গ্র্যান্ড বাজার (ভিডিও)
হাজার বছরের যেসব ঐতিহ্য বহন করছে তুরস্কের গ্র্যান্ড বাজার (ভিডিও)

তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে অবস্থিত গ্র্যান্ড বাজার। তুর্কিতে এটাকে বলা হয় ‘কেপাল সার্সি’ আর ইংরেজিতে ‘গ্র্যান্ড বাজার’। এটি সম্পদে যেমন ধনাঢ্য তেমনি এর ঐতিহ্যও কম নয়। ১৪৫৫ সালের শীতে যখন এর প্রথম ইট গাঁথা হয় ততদিনে রোমানদের পতন হয়। কনস্ট্যান্টিনোপলের মসনদে বসেছে ইতিহাসের বিস্ময়কর পুরুষ মুহাম্মদ আল ফাতিহ। তার হাতেই এ বাজারের প্রতিষ্ঠা। প্রধানত কাপড় ও অলংকার ব্যবসায়ীদের জন্য প্রতিষ্ঠিত এ বাজারের খ্যাতি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়তে সময় লাগেনি।

মাত্র দুটি পেশার মানুষদের জন্য প্রতিষ্ঠিত এ বাজারের প্রাক্তন নাম ছিল ‘বেদেস্তান’; কাপড়ের বাজার। সুলতান সুলেমান আল-কানুনি’র সময় এর পাশাপাশি আরও একটি বাজার নির্মিত হয়। যার নাম ‘সান্দাল বেদেস্তান’।

বাজারটির ৬১ গলিতে দোকান রয়েছে প্রায় ৪ হাজার। ২২টি পথ দিয়ে প্রবেশ করা যায় বাজারটিতে। বাজার প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে বাজারের অলংকারের দোকান থেকে স্ত্রীদের জন্য অটোমান সাম্রাজ্যের সম্রাটরা অলংকার কিনতেন। সম্রাটরাও এখান থেকে বাজার করতেন। এটি হচ্ছে সবচেয়ে প্রাচীন বাজার।

পৃথিবীর প্রথম শপিংমল হিসেবে খ্যাত ‘গ্র্যান্ড বাজার’ পর্যটন কেন্দ্র হিসেবেও পরিচিত। ইট-পাথরের গড়া এই শপিংমল দেখতে গড়ে প্রতিদিন আড়াই থেকে ৪ লাখ দর্শনার্থী এসে থাকেন। গ্রীষ্ম ও বসন্তকালে এই দর্শনার্থীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৫ লাখ পর্যন্ত। নিরাপত্তার জন্য রয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

আরও তথ্যসহ বিস্তারিত জানা যাবে ভিডিওতে

এসআর/

RTV Drama
RTVPLUS