Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ২ আষাঢ় ১৪২৮

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সাংবাদিক রোজিনার গ্রেপ্তার, নিন্দার ঝড়

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম গ্রেপ্তার

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম পেশাগত দায়িত্ব পালনে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গেলে তাকে আটকে রেখে নির্যাতন করেন মন্ত্রণালয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা। নির্যাতনের পর শাহবাগ থানা পুলিশের হাতে রোজিনাকে তুলে দেওয়া হয়। রাত ১২টার পর তার বিরুদ্ধে ‘অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট’ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। গ্রেপ্তারের খবর আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যম গুরুত্বসহ প্রকাশ করা হয়েছে।

সাংবাদিককে গ্রেপ্তার এবং নির্যাতনের এই ঘটনায় বাংলাদেশে মুক্ত সাংবাদিকতার কণ্ঠরোধের চেষ্টাও বলে উল্লেখ করা হয় আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে।

মার্কিন বার্তাসংস্থা অ্যাসোসিয়েট প্রেসের (এপি) ‘দুর্নীতি প্রকাশকারী হিসেবে পরিচিত সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করেছে বাংলাদেশ’ শিরোনামে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সরকারি দুর্নীতির বিষয়ে শক্তিশালী প্রতিবেদন তৈরির জন্য বাংলাদেশে পরিচিত এক সাংবাদিককে ঔপনিবেশিক আমলের অফিশিয়াল সিক্রেটস আইন লঙ্ঘনের দায়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই আইনে কেউ দোষী সাব্যস্ত হলে তার ১৪ বছরের কারাদণ্ড অথবা মৃত্যুদণ্ডের সাজার বিধান রয়েছে।

আল-জাজিরা ‘রোজিনা ইসলাম: কোভিড প্রতিবেদনের জন্য বাংলাদেশে সাংবাদিক গ্রেপ্তার’ শিরোনামে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস নিয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করেছেন নারী সাংবাদিক। তাকে গ্রেপ্তারের পর দেশটির শতশত সাংবাদিক প্রতিবাদ শুরু করেছেন।

ভারতীয় সরকারি বার্তাসংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়ার (পিটিআই) বলছে, বাংলাদেশের অনুসন্ধানী প্রতিবেদককে ঔপনিবেশিক আমলের দাপ্তরিক গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের দায়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টও রোজিনা ইসলামকে গ্রেপ্তার বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৯২৩ সালের দাপ্তরিক গোপনীয়তা আইনের আওতায় সোমবার মধ্যরাতে রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার রোজিনা ইসলাম পুলিশি হেফাজতে সোমবার রাত কাটিয়েছেন। এছাড়াও সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের গ্রেপ্তারের খবর ভারতীয় দৈনিক দ্য হিন্দু, মধ্যপ্রাচ্যের দৈনিক গালফ নিউজ, এবিসি নিউজসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম প্রকাশ করেছে।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে অনুসন্ধানী সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে গ্রেপ্তারের প্রতিবেদন প্রকাশের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইস্টারন্যাশনাল, নিউইয়র্কভিত্তিক দ্য কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্ট (সিপিজে) ও আন্তর্জাতিক সংস্থা গ্লোবাল ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিজম নেটওয়ার্ক (জিআইজেএন) সংগঠনগুলো রোজিনা ইসলামকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ করেছে।

এফএ

আরটিভি সর্বশেষ নিউজ পেতে ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন...

https://www.facebook.com/rtvnews247

RTV Drama
RTVPLUS