Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

‘হাসপাতালে বিছানা ফেলার জায়গা নেই’

‘হাসপাতালে বিছানা ফেলার জায়গা নেই’

করোনার সংক্রমণ কমাতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সুপারিশ ছিল ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নের। কিন্তু রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানার ব্যবসায়ীদের অুনরোধে রোববার (০১ আগস্ট) কারখানা খোলাসহ দূরপাল্লার গণপরিবহন ও লঞ্চ চালুর অনুমতি দেয় সরকার। এতে গ্রাম থেকে দলে দলে কর্মস্থলে ফেরা শুরু করেন কারখানার শ্রমিকরা। এ বিষয়ে রোববার (১ আগস্ট) মহাখালীর বিসিপিএস মিলনায়তনে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস প্রথম বর্ষের ক্লাস উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম বলেন, আমাদের সুপারিশ ছিল, কিন্তু সেটা আমাকে দিয়ে আবার বলাচ্ছেন কেন, আমাকে ফাঁদে না ফেললে কি খুব সমস্যা হবে…এটা বাদ দেন।

সংবাদ কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারাই বলেন, যে প্রশ্নটা আমাকে করলেন এর উত্তর কী হবে। পরে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই বাড়বে। এর ফলাফল যেটা হবে সেটার জন্য আমাদেরকে যতোই দোষারোপ করা হোক না, এটা তো সত্যি, আমার সক্ষমতার সীমাবদ্ধতা রয়েছে।

হাসপাতালে বেড সংকটের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, হাসপাতালের বিছানা তো রাবার নয় যে, টানতে টানতে বড় হবে। বিছানা একটাও ফেলার জায়গা নাই, কোথায় আমি আর জায়গা দেবো।

তারপরে তো শুধু কোভিড রোগী নয়, নন কোভিড রোগীরাও আছেন। তাদের সেবাও ব্যাহত হচ্ছে জানিয়ে অধ্যাপক খুরশিদ আলম বলেন, সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজের মতো এত বড় একটা হাসপাতালকে টোটালটাই কোভিড করে দিয়েছি, তাতে কী সামাল দেয়া যাচ্ছে? আজ একটা বিছানাও খালি নেই। তাহলে রোগীর উৎপত্তিস্থল যদি বন্ধ করতে না পারি, তাহলে এটা করে হাসপাতালের শয্যা সংখ্যা বাড়িয়ে বা অন্যান্য সুবিধা বাড়িয়ে খুব কি লাভ হবে?

প্রসঙ্গত, ঈদুল আহজা কেন্দ্র করে সরকার সারাদেশ ব্যাপী কঠোর লকডাউন শিথিল করলেও ঈদের পর ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর বিধিনিষেধ কার্যকর নিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। কিন্তু আজ রোববার (১ আগস্ট) গণপরিবহন ও লঞ্চ চলাচলে শিথিল করে দেয় সরকার।

এফএ

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS