• ঢাকা বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

গাঁজা সেবন নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ৩

রাবি প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৬ মে ২০২৪, ২১:০০
ছবি : আরটিভি

গাঁজা সেবনে বাধা দেওয়ায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দুই পক্ষের অন্তত তিনজন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

বুধবার (১৬ মে) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা আনুষদ চত্ত্বরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষে আহতরা বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্র থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা নিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ চত্ত্বরে মুক্তমঞ্চের পিছনে কয়েকজনকে নিয়ে গাঁজা সেবন করছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের শিক্ষার্থী সৌরভ শেখ বন্ধন। এ সময় বন্ধনকে চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান পুলক ও আলী আকবর ফয়েজী অপু গাঁজা সেবনে বাধা দেওয়ায় উভয় পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি ও ধাক্কাধাক্কি হয়। একপর্যায়ে পুলক হেলমেট দিয়ে বন্ধনের মাথায় আঘাত করলে বন্ধনের মাথা কেটে কিছুটা রক্তপাত হয়।

পরবর্তীতে বন্ধনের ফোনের প্রেক্ষিতে শাখা ছাত্রলীগের কর্মী আকাশ ও সানিসহ ১০-১৫ জন ঘটনাস্থলে আসেন। তারা অপু ও পুলককে মারধর করে এবং চারুকলা-সংলগ্ন রফিকের ক্যান্টিনে ভাঙচুর চালায়।

এ সময় দোকানদার রফিকও সামান্য আহত হয়। পরে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেন। পরবর্তীতে পুলক, বন্ধন, ও অপু তিনজনই বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসাকেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা নেন।

ঘটনাটি সমাধানে প্রক্টর দপ্তরে আলোচনায় বসেন ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ও প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা।

জানতে চাইলে গাঁজা সেবনের অভিযোগটি অস্বীকার করে সৌরভ শেখ বন্ধন বলেন, আমরা চারুকলায় বসে সিগারেট খাচ্ছিলাম। হঠাৎ ক্যাম্পাসের কয়েকজন আমার কাছে জানতে চায়, ‘তোরা কারা? কি করতে এসেছিস এখানে?’ আমরা নিজেদের পরিচয় দেওয়ার পর তাদের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয়। তারপর সেখানে অপু ভাই এবং পুলক ভাই উপস্থিত হয়। তখন তারা আমাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করে এবং আমার কাপড় ধরে টানাটানি করে ও চড়থাপ্পড় দেয়। আমার জামা ছিঁড়ে যায়। তাদের মধ্যকার একজন ধারালো কিছু দিয়ে মাথায় আঘাত করে এবং আমার মাথা ফেটে যায়।

আলী আকবর ফয়েজী অপু বলেন, ছোট ভাইদের সাথে ওদের কি নিয়ে ঝামেলা হয়েছিল জানি না। আমি ঘটনাস্থলে মীমাংসা করার জন্য উপস্থিত হয়ে তাদের বলেছি, তোমরা চলে যাও। তখন ওরা আমার সাথে খারাপ আচরণ করতে শুরু করে। ওরা আমার মোটরসাইকেল ভাঙচুর শুরু করে। পরে সেখানে পুলক উপস্থিত হলে ওর ওপর আক্রমণ করে।

মেহেদী হাসান পুলক বলেন, আমি পুরো ঘটনা জানি না। আমাকে ফোন করে জানানো হয় ক্যাম্পাসের কোনো ছোট ভাইয়েরা অপু ভাইয়ের সঙ্গে খারাপ ব্যাবহার করছে। উপস্থিত হয়ে দেখি বন্ধনসহ কয়েকজন ছিল। আমি বন্ধনকে আগে থেকেই চিনতাম। আমি ওকে বলেছি, তুমি মনে হয় আমার জুনিয়র এবং অপু ভাই হলেন আমার সিনয়র।

এ সময় তুই-তোকারি বাদ দিয়ে ভালোভাবে কথা বলতে বলায় তারা আমার দিকে তেড়ে এসে বলে তুই-তোকারি করলে কি করবি? এরপরে তারা আমাকে ধাক্কাধাক্কি করে এবং ৪/৫ জন মিলে মারধর শুরু করে। মারধরের এক পর্যায়ে আমরা পাশের রফিক ভাইয়ের দোকানে চলে যাই। এর মধ্যে বন্ধনেরা বাঁশ, লাঠি হাতে প্রায় ৪০-৫০ জন উপস্থিত হয়ে রফিক ভাইয়ের দোকানে এসে আমাকে ওঅপু ভাইকে মারধর করে। পরে অপু ভাইয়ের গাড়িও ভাঙচুর করে।

চারুকলা অনুষদের ডীন অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী বলেন, আমি অফিসিয়াল কাজে ব্যাস্ত ছিলাম। ঘটনার কথা শুনে এখানে আসার পর শুনি বহিরাগতরা (চারুকলার শিক্ষার্থী না) বসে গাঁজা খাচ্ছিল। আমাদের কিছু ছাত্র এখানে বসা ছিল। তারা গাঁজা খেতে নিষেধ করাতে এখানে বাকবিতণ্ডা ও ধাক্কাধাক্কি হয়।

প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক বলেন, শুনেছি গাঁজা খাওয়াকে কেন্দ্র করে ঘটনাটি ঘটেছে। যেহেতু ঘটনাটি চারুকলা অনুষদের ভেতরে ঘটেছে, তাই আমি তাদের বলেছি, ডীন বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিতে। ডীন এ ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে। তারপর আমরাও জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।

ছাত্রলীগের কর্মীদের সংঘর্ষে সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল্লাহ-হিল-গালিব বলেন, আমরা মেডিকেল থেকে তাদের প্রক্টর দপ্তরে নিয়ে গেছিলাম। সেখানে ওদের ভুল-বোঝাবুঝির সমাধান করে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় সঙ্গে ছাত্রলীগের কোনো সম্পৃক্ততা ছিল না।

মন্তব্য করুন

daraz
  • শিক্ষা এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
রাবির ভর্তি পরীক্ষা ৪ আঞ্চলিক কেন্দ্রে, থাকছে স্নাতকোত্তরে ভর্তির সুযোগ 
পরীক্ষার সুযোগ চেয়ে রাবির দর্শন বিভাগে তালা, আমরণ অনশন
রাবিতে ফল প্রকাশে অটোমেশন প্রক্রিয়ার উদ্বোধন
রাবিতে ইনোভেশন শোকেসিংয়ে চ্যাম্পিয়ন ইসাবেল স্মার্ট ক্যাটারিং