• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে টানা দ্বিতীয়বার গবেষণা মেলা, গবেষণায় বাড়ছে প্রতিযোগিতা 

সিফাত শাহরিয়ার প্রিয়ান, নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

  ১২ মে ২০২৪, ২২:৩২
নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে টানা দ্বিতীয়বার গবেষণা মেলা, গবেষণায় বাড়ছে প্রতিযোগিতা 
ছবি : আরটিভি

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মতো গবেষণা মেলা আয়োজন করা হয় ২০২৩ সালের ২০-২১ মার্চ। এ বছরও দুদিনব্যাপী গবেষণা মেলা আয়োজন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ হিসেবে বলা হয় নতুন জ্ঞানের সৃষ্টি, জ্ঞান আহরণ ও জ্ঞান বিতরণ। এই কাজগুলো হয় মূলত গবেষণার মধ্য দিয়ে। সেই জায়গায় এমন মেলা গবেষকদের নিজেদের গবেষণা সবার সামনে উপস্থাপন, উন্মোচন ও প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেওয়ার মতো চ্যালেঞ্জ সৃষ্টি করেছে।

সম্প্রতি বুধবার ও বৃহস্পতিবার (৮ ও ৯ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয়বারের মতো গবেষণা মেলা আয়োজন করা হয়। এর মাধ্যমে শিক্ষকদের গবেষণাসমূহ সবার জন্য উন্মুক্ত করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাকৌশলীরা বলছেন, এমন মেলার মাধ্যমে শিক্ষকদের মধ্যে প্রতিযোগিতার মনোভাব তৈরি হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মধ্যেও গবেষণার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি করা গেছে। গবেষণার প্রতি এভাবে জোর দিলে বিশ্ববিদ্যালয়টির সুনাম বহুগুণে বৃদ্ধি পাবে।

জানা যায়, প্রথম গবেষণা মেলায় বিভিন্ন চিত্র ফুটে উঠেছিল। যেমন বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বিভাগসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান তাদের বিজ্ঞান-কলা-সামাজিক বিজ্ঞান-ব্যবসায়-আইন-চারুকলার গবেষণা কর্ম, বই, প্রজেক্ট, মডেল ইত্যাদি উন্মুক্ত করে। জাতীয় কবির নামে প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় বলে কবিকে নিয়ে কাজটিও হয় সম্মানের সঙ্গে। এরমধ্যে নজরুলের গান, কাব্য নিয়ে সঙ্গীত বিভাগের শিক্ষকদের একাধিক গ্রন্থমেলায় স্থান পায়।

দ্বিতীয়বার গবেষণা মেলায় গবেষকদের ‘প্রতিযোগিতা’ প্রসঙ্গটি চলে এসেছে। মেলাতে উপস্থিতি ও আগ্রহ দুটোই বেড়েছে। অবশ্য কথাটি জোর দিয়ে ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর। তিনি বলেছেন, গবেষণা মেলার জন্য শিক্ষকদের মধ্যে একটি প্রতিযোগিতার মনোভাব তৈরি হয়েছে। ভবিষ্যতে ভালো ও উন্নতমানের গবেষণা পরিচালনার জন্য গবেষকদের প্রণোদনার পাশাপাশি তাদেরকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরস্কৃতও করা হবে বলে উপাচার্য ঘোষণা দিয়েছেন।

গবেষণা মেলার মূল লক্ষ্য নিরপেক্ষ মূল্যায়নের মাধ্যমে মানসম্মত গবেষণার প্রসার ঘটানো ও শিক্ষকদের গবেষণার প্রতি আকৃষ্ট করা। যাতে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে যোগাযোগ বৃদ্ধি পায়। অন্যদিকে, গবেষণার প্রতি শিক্ষার্থীদের আগ্রহ তৈরি করা অন্যতম লক্ষ্য। প্রথম গবেষণা মেলাতে উপাচার্য ঘোষণা দেন প্রতিবছরই নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা মেলা আয়োজন হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর আরটিভি নিউজকে বলেন, ‘আমি যখন রবীন্দ্রনাথের শিক্ষা দর্শন নিয়ে যখন লেখাপড়া করি, তখন তার একটি মন্তব্য আমাকে অনুপ্রাণিত করেছিল এবং সেটি হলো- বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ, জ্ঞান বিতরণ নয় শুধু, জ্ঞানসৃজন। আমি মনে করি, জ্ঞান সৃজন করতে হলে, দরকার প্রচুর পরিমাণে গবেষণা। গবেষণা মেলা করলে, কৃত গবেষণা জনসমক্ষে উপস্থাপনার সুযোগ থাকে এবং প্রতিযোগিতা বাড়ে। শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে গবেষণার মনমানসিকতা তৈরি করার মানসে আমি গবেষণা মেলা অনুষ্ঠানের কথা ভাবি আর সেটাই গত দুবছর ধরে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।’

মন্তব্য করুন

daraz
  • শিক্ষা এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
ভাতের মাড়ে যত উপকারিতা
দুবাইয়ে বাংলাদেশিদের ৪৪১৫ কোটি টাকার সম্পত্তি, যা জানাল দুদক
ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের গবেষণা টিমের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি
রংপুরে তুলা গবেষণা কেন্দ্রে আগুন
X
Fresh