logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭

চূড়ান্ত পরীক্ষার দাবিতে আন্দোলনে কুবি শিক্ষার্থীরা

চূড়ান্ত পরীক্ষার দাবিতে আন্দোলনে কুবি শিক্ষার্থীরা
চূড়ান্ত পরীক্ষার দাবিতে আন্দোলনে কুবি শিক্ষার্থীরা
স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্নাতকের চূড়ান্ত পরীক্ষা দ্রুত নেয়ার দাবিতে  বিক্ষোভ মিছিল করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার (২ ডিসেম্বর) প্রশাসনিক ভবন তালাবদ্ধ করে কর্মসূচি অব্যাহত রাখেন তারা।

আন্দোলনকারীদের দাবি, ৩ ডিসেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা নেয়ার  সিদ্ধান্তে আসতে হবে এবং ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে পরীক্ষার তারিখ দিতে হবে। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচিরও হুমকি দেন তারা। তবে দুপুরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দেয়া হলে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন স্থগিত করে।  

কর্মসূচিতে অংশ নেয়া একাউন্টিং বিভাগের শিক্ষার্থী বাহার উদ্দিন বলেন, আমাদের দাবি হচ্ছে স্নাতক শেষ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষার ব্যাপারে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সকলের ক্লাস নেয়া যেহেতু অনেকের সমাগমের একটা ব্যাপার আছে, সেহেতু তা না হলেও পরীক্ষা গ্রহণের যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।

সম্প্রতি হওয়া বিসিএস সার্কুলারে আবেদন করতে না পারলে  স্নাতক শেষ করে শিক্ষার্থীদের দীর্ঘ সময় পরবর্তী বিসিএস সার্কুলারের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। এ জন্য প্রশাসনকেই দায়ী করছেন শিক্ষার্থীরা। 

বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী ফয়সাল হাবিব এ বিষয়ে বলেন, আমাদের অনার্স শেষ হওয়ার কথা ২০১৯ সালে। যদি যথাসময়ে শিক্ষা কার্যক্রম শেষ হতো তবে আমরা বিভিন্ন চাকরির নিয়োগ ও ৪১ তম বিসিএসে আবেদন করতে পারতাম। কিন্তু প্রশাসনের হেলাফেলায় আমরা এখন ৪৩তম বিসিএসেও এপ্লাই করতে পারব কিনা সেটা নিয়ে শঙ্কায় আছি।

বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালে কুবি রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. আবু তাহের শিক্ষার্থীদের শীঘ্রই চূড়ান্ত পরীক্ষা নেয়ার আশ্বাস দেন। তিনি বলেন, আমাদের ভিসি স্যার স্নাতকের চূড়ান্ত পরীক্ষা নেয়ার ব্যাপারে ইউজিসি থেকে মৌখিক সম্মতি এনেছে। আজ সকাল থেকেই উপাচার্যের নির্দেশনায় আমরা পরীক্ষার রুটিন তৈরিসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি শুরু করেছি। শীঘ্রই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়াও রেজিস্ট্রারের মাধ্যমে আন্দোলনরতদের সঙ্গে ফোনে কথা বলে একই আশ্বাস দেন কুবি উপাচার্য। 

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রসঙ্গে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ইউজিসির সভায় এ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সকল উপাচার্যগণই দ্রুত পরীক্ষা নেয়ার ব্যাপারে একমত হয়েছেন। আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা কমিটিকে রুটিন তৈরিসহ অন্যান্য প্রস্তুতি সেরে রাখতে বলেছি। সিদ্ধান্ত আসলেই দ্রুত পরীক্ষা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, এর আগেও ২৫ নভেম্বর শিক্ষার্থীরা চূড়ান্ত পরীক্ষার দাবিতে মানববন্ধন ও উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS