logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

নাশতায় মসলা ভুনা ছোলা

নাশতায় মসলা ভুনা ছোলা
ঘরবন্দির সময়টায় হয়তো আপনার আর ভালো লাগছে না। রান্নায় নতুন নতুন রেসিপি দিয়ে এই সময়টা পরিবারের সঙ্গে একসঙ্গে খাওয়া দাওয়ায় আনন্দে থাকতে পারেন। সকাল কিংবা বিকেলের নাশতার জন্য একই ধরনের খাবার খেতে বিরক্ত লাগলে মসলাদার ভুনা ছোলা তৈরি করে নেয়া যাবে যেকোন বেলার জন্যে। 

সকালের নাশতায় পরোটার সাথে কিংবা বিকালের নাশতায় মুড়ির সাথে ভরপেট ও মুখরোচক খাবারের জন্য ছোলা ভুনা খুবই মজাদার রেসিপি। সেই ছোলা ভুনাকেই কিছু বাড়তি মসলায় ভিন্নভাবে তৈরি করে নেয়া যাবে।

মসলা ভুনা ছোলা তৈরিতে যা যা লাগবে

সারারাত ভিজিয়ে রাখা এক কাপ ছোলা, দুইটি পেঁয়াজ কুঁচি, তিন কোয়া রসুন কুঁচি, আধা ইঞ্চি আদা কুঁচি, একটি টমেটো কুঁচি, এক কাপ টমেটো বাটা, এক টেবিল চামচ তেল, একটি তেজপাতা, একটি দারুচিনি স্টিক, চারটি এলাচ, কয়েকটি লবঙ্গ, দুই চা চামচ লবণ, এক চা চামচ চিনি, আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়া, এক চা চামচ জিরা গুঁড়া, এক চা চামচ ধনিয়া গুঁড়া, আধা চা চামচ মরিচ গুঁড়া, এক চা চামচ গরম মসলা, এক টেবিল চামচ ঘি, ৩-৪ টি কাঁচামরিচ ফালি।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. কড়াইতে তেল গরম করুন। তেল গরম হয়ে এলে তেজপাতা, এলাচ, দারুচিনি ও লবঙ্গ দিয়ে হালকা ভেজে নিয়ে আদা, রসুন ও পেঁয়াজ কুঁচি দিয়ে নাড়তে থাকুন। কসা হয়ে এলে হলুদ গুঁড়া, লবণ ও চিনি দিয়ে মিনিট খানেক নাড়তে হবে।

২. এতে ধনিয়া, জিরা ও মরিচ গুঁড়া দিয়ে দুই মিনিটের জন্য নেড়ে টমেটো কুঁচি দিয়ে দিতে হবে এবং আরও দুই মিনিটের জন্য নাড়তে হবে।

৩. এই মসলাতে ভিজিয়ে রাখা ছোলা পানি নিংড়ে দিয়ে দিতে হবে, সাথে দেড় কাপ পানি, টমেটো বাটা ও আধা চা চামচ লবণ দিয়ে নাড়তে হবে এবং চুলার জ্বাল বাড়িয়ে দিতে হবে। এ অবস্থায় অন্তত ২০-৩০ মিনিটের জন্য রাখতে হবে এবং প্রথম দশ মিনিটের পর পাত্রের মুখ ঢেকে দিতে হবে।

৪. অন্তত আধা ঘন্টা পর পাত্রের মুখ খুলে ছোলার উপরে গরম মসলা ছিটিয়ে দিতে হবে। প্রয়োজন হলে লবণ দিতে হবে কিছুটা।

৫. ছোলা সিদ্ধ হয়ে আসলে এর উপরে ঘি ও কাঁচামরিচ ফালি দিয়ে পাঁচ মিনিট অল্প আঁচে রেখে নামিয়ে ধনিয়া পাতা কুঁচি ছিটিয়ে পরিবেশন ক।
 
এস 

RTVPLUS