logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭

কফি পানে আয়ু বাড়ে, গবেষণা

ফাইল ছবি
শীতকাল সবার কাছেই পছন্দের ঋতু। কে না ভালোবাসে এই শীত? সকালে ঘুম থেকে উঠে গরম গরম এক কাপ কফি না হলে হয়! কফিতে চুমুক দেয়া মানেই যেন অনুভূতি বদলে যাওয়া। আবার অফিসে ব্যস্ততার ফাঁকে এক কাপ কফি রিল্যাক্স করে দিতে পারে অতিরিক্ত কাজের চাপগুলো। কিন্তু আপনি কি জানেন, দিনে আপনার কয় কাপ কফি খাওয়া উচিত? তবে এটা ঠিক যে, তিন কাপ কফি খেতে পারলে আপনার জন্য অনেক ভালো।

গবেষণা বলছে, দিনে তিন কাপ কফি খেলে আয়ু বাড়ে মানুষের। ইউরোপীয় ১০টি দেশের প্রায় পাঁচ লক্ষ মানুষের উপর এ সংক্রান্ত গবেষণা চালানোর পর এমন সিদ্ধান্তের কথা প্রকাশ করা হয়েছে। সেই ভিত্তিতেই এমন দাবি করছেন গবেষকরা।

অ্যানালস অব ইন্টারনাল মেডিসিন’র একটি গবেষণা জার্নালে বলা হয়েছে, মাত্র এক কাপ অতিরিক্ত কফি আয়ু বাড়াতে পারে মানুষের। এমনকি এই কফি যদি ডিক্যাফিনেটেড বা ক্যাফিনবিহীনও হয়ে থাকে তাহলেও হবে। লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষকরা বলেছেন, বেশি কফি পান মৃত্যু ঝুঁকি কমায়। এছাড়াও হৃদরোগ এবং পাকস্থলীর রোগে মানুষের মৃত্যুর ঝুঁকিও কমিয়ে থাকে।

এদিকে ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক স্যার ডেভিড স্পিগেলহালটার বলছেন, গবেষণার দাবি যদি সঠিক হয় তাহলে অতিরিক্ত এক কাপ কফিতে একজন পুরুষের তিন মাস এবং একজন মহিলার এক মাস আয়ু বাড়তে পারে।

তবে এ গবেষণার ব্যাপারে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। বলছেন, কফি মানুষের আয়ু বাড়াচ্ছে নাকি কফি পানকারী মানুষদের জীবন ব্যবস্থাপনার জন্য দীর্ঘদিন বাঁচছেন তারা, এটা স্পষ্ট নয়। তবে আগের গবেষণায় মানবদেহের ওপর কফির প্রভাব নিয়ে পাল্টাপাল্টি ফল পাওয়া গিয়েছিল। কফিতে থাকা ক্যাফেইন মানুষকে সাময়িক সময়ের জন্য সজাগ রাখতে পারে। কিন্তু বিভিন্ন মানুষের ওপর ক্যাফেইনের প্রভাব বিভিন্ন রকম।

এদিকে ব্রিটেনের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস বলছে, সন্তান সম্ভবা নারীদের দিনে ২০০ গ্রামের বেশি ক্যাফেইন গ্রহণ করা মোটেও উচিত হবে না। অতিরিক্ত কফি পানের ফলে গর্ভে থাকা সন্তান খুব ছোট হতে পারে বলে মনে করছেন সংস্থাটি।

সূত্র: জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়

এসআর/এমকে

RTV Drama
RTVPLUS