logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ভারতে কিশোরীকে সাত লাখ রুপিতে বেচে দিয়েছে বাবা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২২:৪২
ভারত, রাজস্থান
ভারতের গণমাধ্যম আনন্দবাজার
ভারতের রাজস্থানের বারমেঢ় জেলার এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে তার ১৩ বছরের মেয়েকে সাত লাখ রুপিতে বিক্রি করে দেয়া অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রায় পাঁচ মাস পর যখন তাকে উদ্ধার করা হলো, তখন সে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা। খবর ভারতের গণমাধ্যম আনন্দবাজারের।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ২২ জুন স্থানীয় গোপা রাম মালি নামে এক ব্যক্তি এই কিশোরীর বাবার কাছে সম্ভ্রান্ত পরিবারে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে আসেন। গোপার কথামতো মেয়েকে নিয়ে বারমেঢ়ের সিওয়ানে যান বাবা। কিন্তু তিনি ফিরে আসেন একা।

তিনি জানান, মেয়েকে মামার বাড়িতে রেখে এসেছেন। ২৬ জুন কিশোরীর পরিবারের লোকজন সিওয়ানে গিয়ে জানতে পারেন মেয়ে মামার বাড়িতে নেই। তখন মেয়ের বাবা বলেন, রাস্তায় মেয়েকে অপহরণ করে দুষ্কৃতকারীরা। এরপর কিশোরীর কাকা থানায় এফআইআর দায়ের করেন।

পুলিশ কিশোরীর বাবা ও গোপাকে গ্রেপ্তার করে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেও পুলিশ কিশোরীর খোঁজ পায়নি। এরপর কিশোরীর কাকা আদালতে ‘হেবিয়াস কর্পাস’ মামলা করেন। হেবিয়াস কর্পাসের অর্থ বেআইনিভাবে কাউকে আটকে রাখলে আদালতকে জানানো।

এই মামলার পর পুলিশের তদন্তে গতি আসে। সিওয়ান থানার স্টেশন হাউস অফিসার দাউদ খান বলেন, দুই অভিযুক্তের সঙ্গে কিশোরীকে হায়দরাবাদ থেকে আমরা উদ্ধার করেছি। তাকে মায়ের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। কিশোরী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

জিজ্ঞাসাবাদে সাত লাখ রুপিতে সানওয়ালা রাম দাসপা নামের এক ব্যক্তির কাছে মেয়েকে বিক্রির কথা বাবা স্বীকার করেছেন বলে দাবি পুলিশের। কিশোরীর বাবা এবং গোপার পর সানওয়ালাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে হায়দরাবাদ থেকে কিশোরীকে উদ্ধারের সময় সানওয়ালার ছেলেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

কে/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ
  • আন্তর্জাতিক এর পাঠক প্রিয়