logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২ ফাল্গুন ১৪২৭

যুক্তরাষ্ট্রে দুই সন্তানকে ফেলে দিয়ে বিতর্কে চীনা সেলিব্রেটি জুটি

Chinese celebrity Accused of abandoning two babies in the US
সিএনএন থেকে নেয়া

প্রথম দেখায় এটাকে সেলিব্রেটি রোমান্সের একটি ক্লাসিক উদাহরণ মনে হতে পারে। এক দশক আগে খ্যাতির চূড়ায় পৌঁছায় চীনের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রী ২৯ বছর বয়সী ঝ্যাঙ শুয়াং। ৩০ বছর বয়সী ঝাঙ হেং ছিলেন একটি ভ্যারাইটি শোয়ের মেধাবী প্রযোজক। ২০১৮ সালে এই দুজনের একসঙ্গে বেশকিছু সেলফি সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা যায়। একটি জনপ্রিয় রিয়ালিটি সিরিজে একসঙ্গে কাজ করার পর এই দুজনকে প্রায়ই পাশাপাশি দেখা যেতো।

তবে চলতি মাসে চীনা সোশ্যাল মিডিয়া উইবোতে ঝাঙ লিখেন যে, এক বছরের বেশি সময় ধরে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে আটকে আছে। তাই ‘তাদের দুই সন্তানকে দেখভাল’ করতে পারেনি। তার এমন বার্তা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করার পর তার ভক্তরা হতবাক হয়ে গেছে।

ঝ্যাঙ ও ঝাঙ তাদের দুই সন্তানের জন্য দুজন সারোগেট মা নিয়োগ দেয়ার পর তাদের মধ্যে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায় বলে ধারণা করা হয়। ঝ্যাঙ নিজের সন্তানদের ত্যাগ করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। চীনের একটি গণমাধ্যম ওই দুই শিশুর বার্থ সার্টিফিকেটের ছবি প্রকাশ করে। সেখানে দেখা গেছে, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর ও ২০২০ সালের জানুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রে ওই দুই শিশুর জন্ম হয়। সেখানে বাবা-মা হিসেবে ঝ্যাঙ ও ঝাঙয়ের নাম লেখা রয়েছে।

গণমাধ্যমটি ঝ্যাঙয়ের বাবা-মার একটি ফোনকলও প্রকাশ করে। সেখানে তাদের বলতে শোনা যায়, হয় ওই দুজনকে ত্যাগ বা কারও কাছে দত্তক দিয়ে দাও। কিন্তু সারোগেট মায়েরা সাত মাসের গর্ভবতী বলে তাদের গর্ভপাত করানো যাবে না বলে জানান ঝ্যাঙ।

জনপ্রিয় এই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ ওঠার পর চীনে মানুষজন হতবাক হয়ে গেছে। কেননা দেশটিতে সাধারণত পারিবারিক বন্ধনকে অনেক মূল্য দেয়া হয়। তাই এ ধরনের ঘটনায় অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। এমনকি দেশটিতে সারোগেসি নিয়েও নতুন করে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। চীনে সরকারিভাবে সারোগেসি নিষিদ্ধ তবে সেখানে গোপনে এটার বড় একটি বাজার তৈরি হয়েছে।

পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় এক বিবৃতিতে ঝ্যাঙ বলেন, এটা খুব বেদনাদায়ক এবং আমার জন্য ব্যক্তিগত বিষয়। তবে তাকে গিরে সারোগেসি নিয়ে যে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে সে বিষয়ে তিনি কিছু বলেননি। যদিও ঝ্যাঙ বলেছেন যে, তিনি দেশের মাটিতে থাকা কোনও আইন ভঙ্গ করেননি এবং বিদেশে গিয়েও সেখানকার নিয়ম মেনে চলেছেন।

RTV Drama
RTVPLUS