logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭

যুক্তরাষ্ট্রে ১৯৫৩ সালের পর কোনও নারীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর

US gov’t carries out first execution of female inmate since 1953
সংগৃহীত
একজন গর্ভবতী নারীকে শ্বাসরোধ করে এবং তার সন্তানকে পেট থেকে কেটে বের করার ঘটনায় অভিযুক্ত কানসাসের একজন নারীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ৭০ বছর পর এই প্রথম কোনও নারী কারাবন্দির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হলো। খবর আল জাজিরার।

স্থানীয় সময় বুধবার রাত ১টা ৩১ মিনিটে ৫২ বছর বয়সী লিসা মন্টগোমারিকে মৃত ঘোষণা করা হয়। এর আগে ইন্ডিয়ানার টেরে হটের ফেডারেল কারাগারে লিসার শরীরে প্রাণঘাতী পেন্টোবারবিটালের ইঞ্জেকশন দেয়া হয়।

গত বছরের জুলাইয়ের পর থেকে এ পর্যন্ত ১১ জন কারাবন্দির মৃত্যুদণ্ড এই ইঞ্জেকশন দিয়ে কার্যকর করা হলো। গত ১৭ বছর ধরে দেশটিতে মৃত্যুদণ্ড বন্ধ থাকার পর এই সাজা পুনরায় চালু করে সর্বোচ্চ সাজার কঠোর সমর্থক ট্রাম্প।

লিসার আইনজীবী কেলি হেনরি এক বিবৃতিতে বলেছেন, রক্তলোভী একটি ব্যর্থ প্রশাসন আজ রাতে তাদের পুরো প্রদর্শনী করেছে। লিসা মন্টগোমারির ফাঁসি কার্যকর করা প্রত্যেকেরই লজ্জাবোধ করা উচিত।

লিসার আইনজীবীরা জানিয়েছেন, শিশুকালে গণধর্ষণসহ ‘যৌন নির্যাতনের’ শিকার হয়েছিলেন তিনি। এর ফলে তার আবেগ ও মানসিক অবস্থা স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। হেনরি বলেন, সরকার ভগ্ন ও ভারসাম্যহীন এই নারীকে হত্যার আগ্রহ দমাতে পারেনি। লিসা মন্টগোমারির মৃত্যুদণ্ডের মাধ্যমে ন্যায়বিচার হয়নি।

RTV Drama
RTVPLUS