logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ২ মাঘ ১৪২৭

চার দেশের নিখুঁত মিসাইলের নিশানায় ইসরায়েল

Israel is the target of precision missiles of four countries
সংগৃহীত
ইসরায়েলের ইনস্টিটিউট ফর ন্যাশনাল সিকিউরিটি স্টাডিজ জানিয়েছে, চলতি বছর ইসরায়েলের জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি হচ্ছে লেবানন, সিরিয়া, ইয়েমেন ও ইরানের নিখুঁত ক্ষেপণাস্ত্র। প্রতিষ্ঠানটি তাদের এক গবেষণা রিপোর্টে এ তথ্য জানিয়েছে।

ইনস্টিটিউট ফর ন্যাশনাল সিকিউরিটি স্টাডিস আরও বলেছে, ২০২০ সালে ইরান পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ায় এবং ক্ষেপণাস্ত্র নির্মাণ প্রকল্প জোরদার করায় ইসরায়েলের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ব্যবস্থায় পরিবর্তন সূচিত হয়। এ সময় ইসরায়েলের সেনাবাহিনীর শক্তি হ্রাস পেয়েছে।

এজন্য কয়েকটি দেশের সঙ্গে সহযোগিতা জোরদারেরও পরামর্শ দিয়েছে তারা। তারা বলছে, ২০২১ সালে মিশর, জর্ডান ও ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সহযোগিতা জোরদার করতে হবে। একইসঙ্গে হামাস যাতে শক্তি বাড়াতে না পারে সে পদক্ষেপ নিতে হবে। হামাসের সামরিক হামলা ঠেকানোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

ইরান পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গেছে বলে ইনস্টিটিউট ফর ন্যাশনাল সিকিউরিটি স্টাডিজের রিপোর্টে দাবি করা হলেও বাস্তবতা হচ্ছে ইরান এখনও এই সমঝোতায় রয়েছে।  এমনকি সমঝোতার শর্ত মেনেই কিছু প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন স্থগিত রেখেছে।

তবে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইরান তাদের বেশ কয়েকটি পরমাণু কেন্দ্রে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা বাড়িয়েছে। সবশেষ ফোরডো প্লান্টে ইরান ২০ শতাংশ ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ করছে বলে জানিয়েছে তেহরান।

কয়েক মাস আগে পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদে হত্যাকাণ্ডের পর ইরান তাদের পরমাণু কর্মসূচি আবারও জোরদার করেছে। এর আগে গত ২০১৮ সালে ছয় জাতির সঙ্গে করা ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে এককভাবে বেরিয়ে যায় ‍যুক্তরাষ্ট্র এবং তেহরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দেয়।

RTV Drama
RTVPLUS