logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ৮ মাঘ ১৪২৭

সন্ত্রাসী তালিকা থেকে সুদানের নাম কাটলো যুক্তরাষ্ট্র

Sudan's listing as sponsor of terrorism ended by US
বিবিসি থেকে নেয়া
সন্ত্রাসী তালিকা থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সুদানের নাম বাদ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার পর সুদানকে কালো তালিকা থেকে বাদ দেয়া হলো। এর আগে সুদানের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসবাদে মদদ দেয়ার অভিযোগ ছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এক চুক্তির আওতায় ১৯৯৮ সালে কেনিয়া ও তাঞ্জানিয়ায় মার্কিন দূতাবাসে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত মার্কিনিদের জন্য ৩৩৫ মিলিয়ন ক্ষতিপূরণ দিতেও রাজি হয়েছে সুদান। ওই হামলায় ২২০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়।

রাজধানী খার্তুমে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাস থেকে এ ব্যাপারে নোটিশ জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, এরইমধ্যে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও সুদানকে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষকের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে এবং এই সিদ্ধান্ত সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) থেকে কার্যকর হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত অক্টোবর মাসে ঘোষণা দিয়েছিলেন যে, তিনি সন্ত্রাসের কালো তালিকা থেকে সুদানের নাম বাদ দেয়ার পরিকল্পনা করছেন। সুদানের সামরিক বাহিনী সমর্থিত অন্তর্বর্তী সরকারও সন্ত্রাসের কালো তালিকা থেকে বের হওয়ার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করছিল।

তারা বলছে, সন্ত্রাসবাদের তালিকায় নাম থাকার কারণে বৈদেশিক বিনিয়োগ মারাত্মকভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। তবে মার্কিন সরকারের এই সিদ্ধান্তের পর সুদান আগের চেয়ে স্বাধীনভাবে ব্যবসা করতে পারবে। এমনকি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা থেকেও ঋণ পাওয়া সহজ হলো দেশটির জন্য।

উল্লেখ্য, ২৭ বছর আগে সুদানকে সন্ত্রাসবাদের কালো তালিকাভুক্ত করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। তখন যুক্তরাষ্ট্র বলেছিল, আফ্রিকা অঞ্চলে মার্কিন স্থাপনাগুলোতে যেসব সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে তার পেছনে সুদানের ওমর আল-বশির সরকারের হাত ছিল।

RTV Drama
RTVPLUS