• ঢাকা সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১
logo

কোকাকোলার পর ‘ফিমেল’ বয়কটের ডাক, অমির খোলা চিঠি

বিনোদন ডেস্ক, আরটিভি

  ১১ জুন ২০২৪, ১৯:৫১

ফিলিস্তিন-ইসরায়েল ইস্যু নিয়ে সারাবিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশেও কোমলপানীয় ব্র্যান্ড কোকাকোলা বয়কটের ডাক দিয়েছে সাধারণ জনগণ। সম্প্রতি এই কোমলপানীয়র বাংলাদেশের একটি বিজ্ঞাপন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা।

এতে মডেল হিসেবে অভিনেতা শরাফ আহমেদ জীবন ও শিমুল শর্মাকে দেখা যাওয়ায় অনেকেই মনে করেন কাজল আরেফিন অমি এই বিজ্ঞাপনটি নির্মাণ করেছেন। কিন্তু পরে জানা যায়, তিনি বিজ্ঞাপনটি তৈরি করেননি। তারপরও মানুষের প্রতিক্রিয়া থামেনি। বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ব্যাচেলর পয়েন্ট খ্যাত এ নির্মাতা।

১১ জুন (মঙ্গলবার) বিকেলে দেওয়া ওই স্ট্যাটাসে কাজল আরেফিন অমি লিখেছেন, মানবতা ও বিবেক এ দুটি বিষয় একজন মানুষকে পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলে। আমি সব সময় চেষ্টা করি আমার কাজের মাধ্যমে মানবতা এবং বিবেককে জাগ্রত রাখতে। গত রোজার ঈদের পর থেকে আমরা টানা ১২ দিন হিট ওয়েভ এর মধ্যে ফিমেল-৪ শুটিং করি ব্যাপক পরিসরে এবং পুরো ইউনিটের সবাই মিলে কঠোর পরিশ্রম করি, শুধুমাত্র আপনাদেরকে বিনোদন দেওয়ার জন্য। আমি সব সময় চেষ্টা করি সাধারণ মানুষের হয়ে কথা বলতে। তাদের জীবনের ছোট-ছোট বিষয় তুলে ধরতে। তারই ধারাবাহিকতায় আমি বানিয়েছিলাম বিদেশ, কিডনি, দই, শেষমেশ এবং আপনাদের ভালোবাসায় আজকে আমি এখানে। আমি আবেগ আপ্লূত এবং কৃতজ্ঞ আপনাদের প্রতি।

তিনি আরও লিখেছেন, একটি বিজ্ঞাপনের সাথে সম্পৃক্ততা থাকে একটি এজেন্সির, কোম্পানির এবং বিজ্ঞাপন নির্মাতার। গতকাল থেকে যে বিজ্ঞাপনের ইস্যুটি নিয়ে আমার দর্শক, আমার পরিবার ও দেশবাসী বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন, আমি সবার কাছে একটি বিষয় পরিষ্কার করতে চাই যে, উক্ত বিজ্ঞাপনের সাথে আমি কোনভাবেই সম্পৃক্ত নই। আমি একজন পরিচালক। কোন অভিনেতা-অভিনেত্রী যখন আমার প্রজেক্টে কাজ করতে আসেন, আমি শুধুমাত্র তাদের ডিরেকশন দেই। তাদের ব্যক্তিগত জীবন, তাদের কাজ, তাদের পথ চলা- এর কোন কিছুর সাথেই আমার কোন ধরনের সম্পৃক্ততা নেই। অবশ্যই তারা আমার টিম মেম্বার। কিন্তু সেটা শুধুমাত্র যখন তারা আমার কাজ করবে তখন। এর বাইরে তাদের ব্যক্তিগত জীবন আছে।

এই নির্মাতা লিখেছেন, আপনারা আমার উপর রাগ করছেন, আবেগ আপ্লুত হচ্ছেন। আমি আপনাদের সকল রাগ-অভিমান মাথা পেতে নিচ্ছি। কারণ, বিজ্ঞাপনটির অভিনয়শিল্পী যারা আছেন, তারা আমার সাথে অনেকদিন ধরেই কাজ করছেন। আপনারা অনেকেই হয়ত এই অভিনয়শিল্পীদের আমার পরিচালিত কাজের মাধ্যমে চেনেন। কিন্তু আমি শুধুমাত্রই এই অভিনয়শিল্পীদের পরিচালক, তাদের অভিভাবক নই। তারা ব্যক্তিগত জীবনে কি করবে, তা সম্পূর্ণই তাদের নিজস্ব ব্যাপার, আমার তাতে কোন হস্তক্ষেপ নেই।

অমি আরও লিখেছেন, আপনারা যারা তাদের ওপর অভিমান করে বলছেন, আমাদের এত কষ্টে বানানো ফিমেল-৪ দেখবেন না, অভিমান করে বলছেন, আমরা বয়কট করছি ফিমেল-৪। আপনারা নিশ্চয়ই পরিবারের একজন ভুল করলে সেই পরিবারের অন্য সদস্যদের শাস্তি দেবেন না। আমরা যারা একসাথে কাজ করি, আমরা সবাই একই পরিবারের সদস্য বলে আমি মনে করি। আমাদের পরিবারের কেউ যদি ভুল করে থাকে, সে তার ভুল বুঝতে পারে এবং সে যদি ক্ষমাপ্রার্থী হয়, অবশ্যই আমরা চাইবো তাকে যেন দেশবাসী এবং সাধারণ মানুষ ক্ষমা করে দেয়।

ব্যাচেলর পয়েন্ট খ্যাত নির্মাতা লিখেছেন, ২০১০ সাল থেকে মিডিয়াতে আমার পথচলা। এই ১৪ বছরের ক্যারিয়ারে আমি সবসময় চেষ্টা করেছি আমার দর্শকদের বিনোদন দেয়ার উদ্দেশ্যে কাজ করতে। আমার চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। ভবিষ্যতেও গল্প এবং শিল্পী নির্বাচনের ক্ষেত্রে আমি আমার দর্শকদের চাহিদার সর্বোচ্চ মূল্যায়ন করবো। আশা করছি আপনারা আমাকে কেউ ভুল বুঝবেন না এবং আমার পরিশ্রমকে বিফলে যেতে দেবেন না। সকলের কাছে অনুরোধ করছি, আমার কাজে কোন অভিনয়শিল্পীর ব্যক্তিগত জীবন খুঁজবেন না, আমি কারো ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কাজ করি না। আমি আমার গল্পের চরিত্র ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করি, যে চরিত্রগুলো আমাদের সমাজের প্রতিচ্ছবি। আমাদের পাশে থাকবেন, ধন্যবাদ।

প্রসঙ্গত, আসছে ঈদে কাজল আরেফিন অমির ওয়েব ফিল্ম ‘ফিমেল ৪’ মুক্তি পাচ্ছে দেশের একটি ওটিটি মাধ্যমে। ঈদের দিন থেকে ২০ টাকা সাবস্ক্রাইব করে এটি দর্শকরা উপভোগ করতে পারবেন।

মন্তব্য করুন

daraz
  • বিনোদন এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
২৪ ঘণ্টায় ‘ফিমেল ৪’ এর রেকর্ড, যা বললেন অমি
ক্ষমা চেয়ে শিমুল বললেন, সামনে বুঝেশুনে কাজ করবো
অভিনেতা জীবন-শিমুলকে লিগ্যাল নোটিশ
ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর নামে বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রতারণার ফাঁদ