• ঢাকা বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১
logo

পরী-সিয়ামের নতুন রেকর্ড

বিনোদন ডেস্ক, আরটিভি

  ০১ মে ২০২৪, ১৭:৩৬
সংগৃহীত
ছবি : সংগৃহীত

ঢালিউডের জনপ্রিয় দুই তারকা পরীমণি ও সিয়াম আহমেদ ‘বিশ্বসুন্দরী’তে প্রথম জুটি বেঁধে অভিনয় করেছিলেন। ছবিটি মুক্তির পর ‘রাতের সব তারা আছে দিনের গভীরে/ বুকের মাঝে মন যেখানে, রাখবো তোকে সেখানে/ তুই কি আমার হবি রে’ গানটি বেশ জনপ্রিয়তা পায়। এবার এ গানটি গড়লো এক নতুন রেকর্ড। জনপ্রিয় গানটি ১০০ মিলিয়ন ভিউয়ের মাইলফলক স্পর্শ করেছে! তা-ও শুধু ইউটিউবেই!

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রযোজনা সংস্থা জানায়, ২০১৯ সালের ৫ ডিসেম্বর এই গানটি মাছরাঙা টিভি অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে মুক্তি পায়। চয়নিকা চৌধুরী পরিচালিত, সিয়াম আহমেদ-পরীমণি অভিনীত ‘বিশ্বসুন্দরী’ চলচ্চিত্রটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় ২০২০ সালের ১১ ডিসেম্বর। রুম্মান রশীদ খান-এর লেখা চলচ্চিত্র ‘বিশ্বসুন্দরী’ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ২০২০ সালের শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ মোট ৮টি পুরস্কার পায়। যার মধ্যে সংগীত বিভাগে একচেটিয়া রাজত্ব করে ‘তুই কি আমার হবি রে’ গানটি।

এই গানের জন্য শ্রেষ্ঠ গীতিকার কবির বকুল, শ্রেষ্ঠ সুরকার ও শ্রেষ্ঠ গায়ক ইমরান মাহমুদুল, শ্রেষ্ঠ গায়িকা দিলশাদ নাহার কনা এবং শ্রেষ্ঠ নৃত্য পরিচালকের পুরস্কার পান প্রয়াত সুমন রহমান। গানটির চিত্রগ্রহণে ছিলেন খায়ের খন্দকার। গান মুক্তির ১৬০৮ দিনের মাথায় ১০০ মিলিয়ন ভিউয়ের অনন্য অর্জনকে বিশেষভাবে দেখছে ‘বিশ্বসুন্দরী’ সিনেমার টিম।

প্রযোজনা সংস্থা নির্বাহী প্রযোজক অজয় কুমার কুন্ডু বলেন, বাংলা সিনেমার গানের একটি ঐতিহ্য আছে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে অনেকে বলেন, আগের মত ভালো গান হয়না; হলেও জনপ্রিয় হয় না। তবে ‘তুই কি আমার হবি রে’ গানটির তুমুল জনপ্রিয়তা প্রমাণ করে, ভালো গান এখনো হচ্ছে এবং শ্রোতারা ভালো গানের কদর করতে কখনো ভোলেন না। ইউটিউবে বাংলা সিনেমার গানের মধ্যে খুব বেশি গান ১০০ মিলিয়নের মাইলফলক পার করেনি। সে জায়গা থেকে ‘তুই কি আমার হবি রে’ গানের এই সাফল্য আমাদের ভীষণভাবে অনুপ্রাণিত করেছে। শ্রোতা-দর্শকদের উদ্দেশে ‘বিশ্বসুন্দরী’ টিমের পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

মন্তব্য করুন

  • বিনোদন এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
কোটা আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা, সরব পরীমণি
শাকিবের ‘আপনজন’ পাঁচ নায়িকা
পরীমণির দৃষ্টিতে শাকিব ‘আম’, জায়েদ ‘বেল’ ও রাজ ‘করলা’
পরমব্রতর কথাগুলো বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছিল: পরীমণি