logo
  • ঢাকা সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭

‘সাংগঠনিক সক্ষমতা হারানোর কারণে বিএনপির এজেন্ট নেই’

‘সাংগঠনিক সক্ষমতা হারানোর কারণে বিএনপির এজেন্ট নেই’
ছবি: সংগৃহীত

সাংগঠনিক সক্ষমতা হারানোর কারণে বিএনপি সব কেন্দ্রে এজেন্ট দিতে পারেনি বলে মনে করছে আওয়ামী লীগ। আজ শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে দলের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সিটি নির্বাচন নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক এসব কথা বলেন।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, বিএনপি সাংগঠনিকভাবে দেউলিয়ায় পরিণত হয়েছে। এজন্য সব কেন্দ্রে হয়তো এজেন্ট দিতে পারে নাই। এখন উদোর পিণ্ডি বুদোর ঘাড়ে চাপানোর চেষ্টা করছে।

দক্ষিণ সিটির বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন মিথ্যাচার দিয়ে দিন শুরু করেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, তিনি (ইশরাক) নিজে গোপীবাগ শহীদ শাহজাহান প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন। সেই কেন্দ্রে তিনি যখন ভোট দেন তখন তাদের পোলিং এজেন্ট ছিল না। অথচ তিনি মিথ্যাচার করছে যে, বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে তাদের পোলিং এজেন্ট বের করে দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ইভিএম এমন এক বিজ্ঞানসম্মত ভোট ব্যবস্থা যে, ইভিএম মেশিন থাকলে কোনও ধরনের কোনও পোলিং এজেন্টের দরকার নেই। কারণ ইভিএম মেশিন নিজেই পাহারা দেয়। বুড়ো আঙ্গুলের ছাপ না দেয়া পর্যন্ত কেউই ভোট দিতে পারবে না।

তিনি আরও বলেন, বিগত দিনগুলোতে আমরা দেখেছি জনগণের ভোটাধিকার নিয়ে বিএনপি-জামাত ছিনিমিনি খেলেছে। যারা গণতন্ত্র ও জনগণের ক্ষমতায়নে বিশ্বাস করে না তারা প্রযুক্তির বিপক্ষে কথা বলে। কেন্দ্র দখল করে, সিল পিটিয়ে একজনের ভোট আরেকজন দেয়ার সুযোগ ইভিএমে নেই।

বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনা ছাড়া সুন্দর পরিবেশে ভোট পর্ব শুরু হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আনন্দ ও উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ভোট হচ্ছে। আমারা অনুরোধ জানাবো ঢাকার সকল ভোটাররা যেন ভোট কেন্দ্রে আসে।

ভোটার উপস্থিতি কমের বিষয়ে তিনি বলেন, শীতের সকাল, তারপর তিনদিনের ছুটি হওয়ার কারণে ভোটারদেরও এক ধরনের অলসতা তৈরি হয়েছে। তারা ভোট কেন্দ্রে একটু দেখেশুনেই আস্তে আস্তে যাচ্ছেন।

বিদেশ কূটনীতিদের তৎপরতা প্রসঙ্গে অপর এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, কূটনীতিকদের স্বাভাবিক একটা শিষ্টাচার রয়েছে। তারা যা করেছে সেটি শিষ্টাচার বহির্ভূত। এই ব্যাপারে দলের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনের ক্ষোভের কথা জানানো হয়েছে।

তিনি বলেন, নির্বাচনে পর্যবেক্ষণের জন্য নির্বাচন কমিশন দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষক নিয়োগ দিয়েছেন। কূটনীতিক মিশনগুলো থেকে বিদেশি পর্যবেক্ষকদের পাশাপাশি দেশি পর্যবেক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এটি পর্যবেক্ষক নিয়োগে আন্তর্জাতিক বিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরিরত বাংলাদেশিদের বিদেশি পর্যবেক্ষক হিসেবে মনোনীত করে কূটনৈতিক মিশনগুলো সঠিক কাজ করেনি।

নানক বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে ক্ষমতায় আছে, জনগণের ভোটাধিকার ক্ষুণ্ণ হয় এমন কোনও কাজ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা করা থেকে শুধু বিরত থাকবেই না, এমন কাজকে প্রতিহত করবে। আমরা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানাই, যে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা রোধ করার জন্য তারা যেন কঠোর অবস্থান গ্রহণ করে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, এস এম কামাল হোসেন, মির্জা আজম, সাখাওয়াত হোসেন শফিক, প্রচার সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS
  • ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন ২০২০ এর পাঠক প্রিয়