Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮

ই-কমার্স প্রতারণায় শুধু মালিকই নয় দায়ী গ্রাহকরাও

ই-কমার্স প্রতারণায় শুধু মালিকই নয় দায়ী গ্রাহকরাও
ছবি- সংগৃহীত

অনলাইনে কেনাকাটায় প্রতারণায় কেবল ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের মালিকরাই নয় অনেকাংশে দায়ী গ্রাহকরাও। অবাস্তব অফারের ফাঁদ পেতে অনেক অসাধু ব্যবসায়ীরা খুলে বসছে ভুঁইফোঁড় সব ওয়েবসাইট। আর তাতে যারা পা দিচ্ছেন তারাই হচ্ছেন সর্বস্বান্ত। বিশ্লেষকদের দাবি, গ্রাহকদের অতি লোভের কারণেই গড়ে উঠছে একের পর এক ই-কমার্স ভিত্তিক প্রতারক চক্র।

একটি কিনলে ৩টি পণ্য ফ্রি দিচ্ছে কেউ কেউ। আবার কেউ বলছে অর্ডার করলে পণ্য মিলবে প্রায় বিনামূল্যে। দ্বিগুণ অর্থ ফেরত দেয়ারও অফার দিচ্ছে কোনো কোনো ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান। তবে এসব পাওয়ার প্রধান শর্ত টাকা পেমেন্ট করতে হবে অগ্রিম। এমন অবাস্তব অফারের লোভ সামলাতে পারেন না অনেক গ্রাহক। শত বা হাজার টাকা নয় এসব প্রতিষ্ঠানে কোটি টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করেন কেউ কেউ।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা শাখার তথ্য মতে, ২০২০ সাল পর্যন্ত দেশের ৬৭টি নামসর্বস্ব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান গ্রাহকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছে ৭ হাজার ২৫৬ কোটি টাকা।

আইটি বিশেষজ্ঞ আল মামুন বলেন, অনেক গ্রাহক পণ্য কেনাকে ব্যবসা হিসেবে নিচ্ছেন। যার কারণে এই সমস্যা দেখা দিয়েছে। কোনো অবাস্তব অফার দেখে নয়। অনলাইনে পণ্য কিনতে হবে জেনে বুঝে।

আইনজীবী মনজিল মোরশেদ বলেন, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর সরকারের নজরদারি আরও জোরালো করতে হবে।

ই-ক্যাবের সহসভাপতি শাহাব উদ্দিন শিপন বলেন, সরকার এবং পুলিশ প্রশাসন মানুষকে সচেতন করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। কিন্তু মানুষ সচেতনই হচ্ছে না। আজকে এই ধরনের পরিস্থিতির জন্য মানুষের অতি লোভ দায়ী।

জিএম/জেএইচ

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS