logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬

খেলাপি ঋণ চলতি বাজেটের প্রায় ৩৩ শতাংশ (ভিডিও)

সেলিম মালিক
|  ২৮ জুন ২০১৯, ১৫:৪৯ | আপডেট : ২৮ জুন ২০১৯, ১৬:১১
বাড়ছেই খেলাপি ঋণ। খোদ অর্থমন্ত্রীর দেয়া তথ্য বলছে, প্রায় পৌনে এক লাখ মানুষের কাছে মন্দ ঋণ আছে এক লাখ দুই হাজার ৩১৫ কোটি টাকা। এর বাইরে অবলোপন করা ঋণ, আরও অন্তত ৫০ হাজার কোটি টাকা। সব মিলে বর্তমানে খেলাপি ঋণের পরিমাণ, চলতি অর্থবছরের বাজেটের প্রায় ৩৩ শতাংশ। বিশ্লেষকরা বলছেন, ব্যাংক খাতে নজিরবিহীন দুর্নীতি ও দোষীদের শাস্তি না হওয়াই, এর প্রধান কারণ।

গেল শনিবার, সংসদে এক প্রশ্নের জবাবে শীর্ষ ৩০০ ঋণ খেলাপির তালিকা প্রকাশ করেন অর্থমন্ত্রী। তিনি জানান, এসব খেলাপিরা নানা সময় ঋণ নিয়েছেন, ৭০ হাজার ৫৭১ কোটি টাকা। এর মধ্যে খেলাপি হয়েছে, ৫০ হাজার ৯৪২ কোটি টাকা।

তালিকায় শীর্ষ ১০ ঋণ খেলাপি প্রতিষ্ঠানগুলো হলো, চট্টগ্রামের ‘সামানাজ সুপার অয়েল’। প্রতিষ্ঠানটির খেলাপি ঋণের পরিমাণ, ১,০৪৯ কোটি টাকা। গাজীপুরের ‘গ্যালাক্সি সোয়েটার অ্যান্ড ইয়ার্ন ডায়িং’-এর খেলাপি ঋণ আছে ৯৮৪ কোটি টাকা, সাভারের ‘রিমেক্স ফুটওয়্যারে’র ৯৭৬ কোটি টাকা, ঢাকার ‘কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমে’র ৮২৮ কোটি টাকা। এছাড়া, চট্টগ্রামের ‘মাহিন এন্টারপ্রাইজ’, ঢাকার ‘রূপালী কম্পোজিট’, ‘ক্রিসেন্ট লেদার ওয়্যার’, চট্টগ্রামের ‘এসএ অয়েল রিফাইনারি’, গাজীপুরের ‘সুপ্রভ কম্পোজিট নিট’ ও ‘গ্রামীণ শক্তি’র কাছে দেশের ব্যাংকগুলোর অনাদায়ী ঋণ রয়েছে, বিশাল অংকের।

অর্থমন্ত্রীর তথ্যে, ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে যেখানে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল, ৫৯ হাজার কোটি টাকা। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর শেষে এর পরিমাণ দাঁড়িয়েছে, এক লাখ দুই হাজার ৩১৫ কোটি টাকা।

বিশ্লেষকদের মতে, খেলাপি ঋণের লাগাম টেনে ধরতে হবে এখনই। আর, কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, তৎপর রয়েছে সংস্থাটি।

এদিকে, খেলাপি ঋণের ব্যাপারে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রতিবেদনে, গত ২০ বছরে ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ উল্লেখ করা হয়েছে, দুই লাখ ২০ হাজার কোটি টাকা। আর এর মধ্যে আদায়যোগ্য ঋণ, এক লাখ ১০ হাজার কোটি টাকা বলে তথ্য দিয়েছে সংস্থাটি।

এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়