• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারি ২০১৯, ৪ মাঘ ১৪২৫

রোবট বানাবে সবাই

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৭ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৫ | আপডেট : ০৭ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৫৪
চলতি মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে বাংলাদেশ রোবটিক্স ফাউন্ডেশন শুরু করতে যাচ্ছে রোবট তৈরির প্রশিক্ষণের কার্যক্রম "চলো রোবট বানাই" নামে টিউটোরিয়াল সিরিজ। প্রোগ্রামটি নিয়মিত দেখানো হবে আরটিভির ফেসবুক পেজে।  

গেল সপ্তাহে বাংলাদেশ রোবটিক্স ফাউন্ডেশন এর সঙ্গে এ সংক্রান্ত চুক্তিসই হয়েছে আরটিভি কর্তৃপক্ষের।

এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সবাই জানতে পারবেন কীভাবে রোবট বানাতে হয়, কী কী যন্ত্র লাগে; যন্ত্রাংশ বাংলাদেশের কোথায় কোথায় পাওয়া যায় ইত্যাদি।

বাংলাদেশ রোবটিক্স ফাউন্ডেশন ২০১৭ সাল থেকে সারাদেশের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে বিনা মূল্যে রোবট বানানোর বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

সংস্থাটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মো. হাফিজুল ইমরান বলেন, সরাসরি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে রোবট শেখানো অনেক সময়সাপেক্ষ এবং খরচও বেশি। আমরা যদি এই প্রশিক্ষণটি অনলাইনভিত্তিক করতে পারি, তাহলে বাংলাদেশের প্রতিটি অঞ্চল থেকে শিক্ষার্থীরা এক যোগে রোবট বানানো শিখতে পারবেন। এবং পরে সেই শিক্ষা কাজে লাগাতে পারবেন।

চুক্তি অনুযায়ী, টানা একবছর চলবে এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম। প্রতি শুক্রবার রাত ১০টায় আরটিভির ফেইসবুক পেজে https://www.facebook.com/rtvonline/ সম্প্রচারিত হবে এ প্রোগ্রামটি। ২০ মিনিটের এই প্রোগ্রাম এর প্রথম ১৫ মিনিট হবে প্রশিক্ষণ এবং বাকি ৫ মিনিট হবে প্রশ্ন-উত্তর পর্ব।

শিক্ষার্থীরা রোবটিক্স বিষয়ে যেকোনো প্রশ্ন করতে পারবেন ফেসবুক কমেন্ট এর মাধ্যমে, যার উত্তরও মিলবে সরাসরি। ফাউন্ডেশনটি প্রতি মাসেই আয়োজন করবে অনলাইন কুইজ। কুইজে বিজয়ীদের মিলবে রোবট শেখার চমৎকার উপহার।

তিনি আরও বলেন, রোবটিক্স ফাউন্ডেশন একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। রোবটিক্স, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল অটোমেশন ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে স্বয়ং সম্পূর্ণ করতে কাজ করে যাচ্ছে এ ফাউন্ডেশন।

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে রোবট বানানোর এই প্রশিক্ষণমূলক প্রোগ্রাম পরিচালনায় এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান তিনি।

ফাউন্ডেশনটির মুখপাত্র ও মিডিয়া এডভাইজার আরটিভি অনলাইনকে বলেন, www.bdrf.org.bd এবং ফেসবুকের www.facebook.com/bdrf.org.bd পেজে জানা যাবে প্রশিক্ষণ বিষয়ে আপডেট তথ্য।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতে রোবটিক্স, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল অটোমেশন নিয়ে গবেষণা করা হয়। ফাউন্ডেশনটি প্রতিনিয়ত বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে সেমিনার, ওয়ার্কশপ, এমনকি শর্ট ট্রেনিং ও পরিচালনা করে সেই প্রচেষ্টাকে আরও একধাপ এগিয়ে নিচ্ছে। 

ফাউন্ডেশনটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সব সুনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ট্রেনিং দিয়েছে। এ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে একযোগে কাজ করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই অনেকগুলো গবেষক টিম যুক্ত হয়েছে।

এমসি/এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়