Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

সেলিম মালিক

  ২৯ জুলাই ২০২১, ১৯:৩১
আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৯:৩৩

ঈদের ৭ দিন পরও চামড়া নিয়ে বিপাকে ব্যবসায়ীরা (ভিডিও)

চামড়া নিয়ে বিপাকে ব্যবসায়ীরা
ছবি- আরটিভি নিউজ।

অন্যান্য বছরের এই সময় লালবাগের পোস্তার আড়ৎ থেকে কোরবানির পশুর লবণযুক্ত চামড়া প্রায় শতভাগই বিক্রি হয়ে যায়। তবে এ বছর চিত্র একেবারেই ভিন্ন।

আড়ৎদাররা বলছেন, লবণজাতকরণের সাতদিন চলে গেলেও দেখা মিলছে না ট্যানারি মালিকদের। এ বাস্তবতায় কাঁচা চামড়া বিক্রি ও ন্যায্য দাম নিশ্চিত করতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ব্যবসায়ীরা।

কোরবানি ঈদের তিন-চারদিন পর থেকেই আড়ৎদারদের কাছ থেকে লবণযুক্ত চামড়া কিনতে রাজধানীর লালবাগের পোস্তার এই জায়গায় লেগে থাকে ট্রাকের জট। এ বছর ঈদের পর সাতদিন কেটে গেলেও দেখা নেই ট্যানারি মালিকদের। নেই কেনা-বেচায় হট্টগোল।

তবে এর মধ্যেও যেসব ক্রেতা আসছেন, চামড়ার দাম হাঁকছেন সরকারের বেঁধে দেয়া দামের চেয়েও কম।

এক ব্যবসায়ী আরটিভি নিউজকে বলেন, সরকার যে নির্ধারিত দাম দিয়েছে সেই নির্ধারিত দামে চামড়া কিনে পোষাতে পারছি না আমরা। বিদেশের বাজারে চামড়ার দাম কম।

এমনভাবে চলতে থাকলে আগামীতে পূর্বপুরুষদের শতবছরের ঐতিহ্যের কাঁচা চামড়ার ব্যবসা ছেড়ে দেবেন অনেকে। ন্যায্য মূল্য নিশ্চিতে চামড়া খাতকে সরকারিভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করতে হবে।

এক ব্যবসায়ী বলেন, সরকারের ওপর নির্ভরশীল হলে আমাদের লাভ বা আশ্বাস ভালো পাওয়া যেত। আমাদের চামড়া সংগ্রহ আরও বেশি হতো। আমাদের চামড়া পঁচতো না।

আড়ৎদারদের সংগঠন বিএইচএসএমএ’র আশা, শিগগিরই ফিরবেন ট্যানারি মালিকরা। জমে উঠবে ব্যবসা।

বিএইচএসএমএ’র সাধারণ সম্পাদক টিপু সুলতান বলেন, এসব দু-চার দিনের ব্যাপার। দেড় লাখ চামড়া নেয়া কোনো ঘটনা না। এটা শেষ হয়ে যাবে।

বর্তমান সংকট উত্তরণে ট্যানারি মালিকদের কাছে পাওনা প্রায় দেড়শ কোটি টাকা পরিশোধেরও দাবি সংগঠনটির।

এসআর/এম

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS