itel
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭

করোনা আপডেট

  •     গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু ৫৫ জন, আক্রান্ত ২৭৩৮ জন, সুস্থ হয়েছেন ১৪০৯ জন: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মানছে না হাইকোর্টের আদেশ

ভৈরব প্রতিনিধি, আরটিভি অনলাইন
|  ২৩ জুন ২০২০, ১৩:৩৪ | আপডেট : ২৩ জুন ২০২০, ১৩:৫১
committee is not following the order of the high court
ছবি সংগৃহীত
কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলার হাওরাঞ্চল মাইজচর ইউনিয়নের একমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলছে ক্ষমতার দাপট আর ধন্ধ। ফলে বাহেরবালী (এসইএসডিপি) মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এম. এ কাসেমকে মিথ্যা অভিযোগে বহিষ্কার করে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি। অবশেষে অবৈধ বহিষ্কার আদেশের বিরুদ্ধে দেশের উচ্চ আদালতে (হাইকোর্ট) রিট পিটিশন দাখিল করে প্রধান শিক্ষক। ফলে গেল ছয় জুন হাইকোর্ট প্রধান শিক্ষক এম. এ কাসেমকে বরখাস্তকরণবিধি সম্মত হয়নি, জানিয়ে বিষয়টি সমাধানপূর্বক সাত কার্যদিবসের মধ্যে বরখাস্তকৃত প্রধান শিক্ষককে স্বপদে বহাল করে শিক্ষা বোর্ডকে অবহিত করার জন্য বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি আ. বাছির মিয়াকে নির্দেশ দেন। কিন্তু ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি হাইকোর্টের আদেশকে অমান্য করে উল্টো প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে তাকে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলে হুমকি দেয়ার অভিযোগ ওঠেছে।    

জানা গেছে, স্কুলটিতে শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে জন্য কোনও সড়ক না থাকার কারণে একটি মাত্র নৌকাই আসা-যাওয়ার মাধ্যম। ফলে শিক্ষার্থীদের অবাদ যাতায়াত ও সুবিধার জন্য আরও দুটি নৌকাসহ বিদ্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়নে জনপ্রিয় টেলিভিশন ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদী’থেকে কেয়া কসমেটিকের সৌজন্যে ১০ লাখ টাকার চেক দেয়া হয়। একইসঙ্গে জেলা প্রসাশকের পক্ষ থেকেও আরও দুই লাখ টাকার চেক দেয়া হয়। এরপরেই প্রধান শিক্ষক এম. এ কাসেমের সঙ্গে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আ. বাছির মিয়ার দ্বন্ধ শুরু হয়। হঠাৎ ২০১৯ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর প্রধান শিক্ষক এম. এ কাসেমকে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ এনে সাময়িক বহিষ্কার করেন ম্যানেজিং কমিটি। পরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়ে সরেজমিন তদন্তে সত্যতা খুঁজে পায়নি কিশোরগঞ্জ জেলা ও বাজিতপুর উপজেলা প্রশাসন। অবশেষে প্রতিকার না পেয়ে শেষ পর্যন্ত বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটির অবৈধ বহিষ্কারাদেশের বিরুদ্ধে প্রধান শিক্ষক এম. এ কাসেম হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করেন।  

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আ. বাছির মিয়ার মনগড়া কথায় এবং বিভিন্ন আর্থিক অনিয়মের সঙ্গে সহমত পোষণ না করায় মিথ্যা অভিযোগে তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানায়, বাহেরবালী (এসইএসডিপি) মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এম. এ কাসেম।

তিনি আরও জানান, অভিযোগের বিষয়ে সরেজমিন তদন্তে কোন প্রকার  সত্যতা খুঁজে পায়নি কিশোরগঞ্জ জেলা ও বাজিতপুর উপজেলা প্রশাসন। এরপরও কোন সুরাহা না পেয়ে অবশেষে আমি দেশের উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দাখিল করলে হাইকোর্ট গেল ছয় জুন হাইকোর্ট বরখাস্তকরণ বিধিসম্মত হয়নি বলে জানিয়ে স্ব-পদে বহাল করে শিক্ষা বোর্ডকে অবহিত করার জন্য বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি আ. বাছির মিয়াকে নির্দেশ দেন। কিন্তু ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি হাইকোর্টের নির্দেশকে অমান্য করে উল্টো আরও মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ এনে আমাকে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলে হুমকি দিচ্ছেন।    

স্থানীয়রা জানায়, দেশের জনপ্রিয় বিটিভির ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’ থেকে বিদ্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য ১০ লাখ টাকার চেক পাওয়ায় পর থেকেই প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে সভাপতির অমিল দেখা দেয়। আর প্রধান শিক্ষকের কারণে সুবিধা করতে না পারায় তাকে অবৈধভাবে বহিষ্কার করা হয়।

অভিযোগ অস্বীকার করে বাহেরবালী (এসইএসডিপি) মডেল উচ্চ বিদ্যালয় ও মাইজচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আ. বাছির জানান, বহিস্কৃত প্রধান শিক্ষক এম. এ কাসেম একজন লোভী এবং দু:শ্চরিত্রের মানুষ। আমরা তাকে সর্তক করলেও তিনি আমলে নেননি। ফলে ম্যানেজিং কমিটি তাকে সাময়িক বহিষ্কার করে। পরে আমরা জানতে পারি তিনি হাইকোর্টে রিট পিটিশন করেছেন। কিন্তু আমরা কোনও চিঠি পায়নি। যখন শুনি তাকে স্বপদে বহালের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সঙ্গে সঙ্গে আমরা হাইকোর্টে আপিল করেছি। এখনও আপিল শুনানি হয়নি।

এ প্রসঙ্গে কিশোরগঞ্জ জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জুলফিকার আলী মুঠোফোনে জানান, জেলা প্রশাসনের গঠিত তিনসদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি সরেজমিনে তদন্ত করে জানতে পারেন, ম্যানেজিং কমিটি যে নিয়মে প্রধান শিক্ষক এম. এ কাসেমকে বহিষ্কার করেছেন। তা যথাযথ নিয়মে বা বিধি অনুযায়ী হয়নি। ফলে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড তাকে স্বপদে বহালের নির্দেশ দেয়। একইসঙ্গে প্রধান শিক্ষক হাইকোর্টে রিট করলেও মহামান্য হাইকোর্টও তাকে স্বপদে বহাল এবং যোগদানের জন্য নির্দেশ দেয়। এরপরও যদি ম্যানেজিং কমিটি বা অন্য কেউ বাধাঁ অথবা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে, তাহলে লিখিত অভিযোগ পেলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

জেবি

RTVPLUS
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ১৬২৪১৭ ৭২৬২৫ ২০৫২
বিশ্ব ১১৩৮২৯৫৪ ৬৪৪০২০৭ ৫৩৩৪৭৭
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়