logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬

পাবনায় গণধর্ষণের ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে তদন্ত দল

পাবনা প্রতিনিধি
|  ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:৩৪
পাবনা গণধর্ষণ প্রাথমিক সত্যতা তদন্ত দল
পাবনায় গণধর্ষণ ও থানায় বিয়ে দেওয়ার ঘটনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরের প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে তদন্ত দল।

রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তদন্ত কমিটির প্রধান পাবনার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাহিদ নেওয়াজ পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদের কাছে এই তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

পাবনার জেলা প্রশাসক সাংবাদিকদের জন্য তদন্ত প্রতিবেদনে গণমাধ্যমের প্রকাশিত খবরের সত্যতা পেয়েছেন। রাতেই তিনি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে তদন্ত প্রতিবেদনটি পাঠিয়ে দিয়েছেন।

গত ২৯ আগস্ট দিনগত রাত থেকে আসামিরা জনৈক গৃহবধূকে চারদিন আটকে রেখে পালাক্রমে গণধর্ষণ করে। এক সময় নির্যাতিতা পালিয়ে সদর থানায় আশ্রয় নেয় ও অভিযোগ করেন। কিন্তু তার অভিযোগ আমলে না নিয়ে পুলিশ ধর্ষক রাসেলের সাথে তাকে বিয়ে দেন। এ ঘটনাটি সংবাদ মাধ্যমে প্রচার হওয়ায় জেলা পুলিশের নির্দেশে ৯ সেপ্টেম্বর মেয়েটি বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামি করে মামলা করেন। এ ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) ফিরোজ আহমেদকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশে পাবনার জেলা প্রশাসন পাবনার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাহিদ নেওয়াজকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

এদিকে পাবনায় গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণের পরে থানায় ধর্ষকের সাথে বিয়ে দেওয়ার ঘটনায় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবায়দুল হককে প্রত্যাহার ও পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) একরামূল হককে বরখাস্ত করেছে পাবনা জেলা পুলিশ।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়