logo
  • ঢাকা শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

কলসিন্দুর স্কুলে মেডেল-সার্টিফিকেট পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় তদন্ত কমিটি

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি
|  ১৫ মে ২০১৯, ২১:২১
বাংলাদেশ নারী ফুটবলের আঁতুড়ঘর হিসেবে পরিচিত ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার কলসিন্দুর উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের অফিস কক্ষে আগুন দিয়ে সনদপত্র, খেলার মেডেল, রেজুলেশন বই, কারিগরি শাখার কাগজপত্রসহ প্রয়োজনীয় গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র পুড়ে ফেলার ঘটনায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শফিউল আলমকে প্রধান করে দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে শিক্ষা প্রশাসন বিভাগ। 

আজ বুধবার দুপুরে পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, এই প্রতিষ্ঠানটি জাতীয়করণের জন্য প্রক্রিয়াধীন। যে বিষয়গুলো নষ্ট হয়েছে বা পুড়ে গেছে, সেগুলো জাতীয় করণের জন্য প্রয়োজনীয়। 

তিনি বলেন, পরিকল্পিত ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে এই প্রতিষ্ঠানে লোকজনই কাজটি করেছে, বাইরে থেকে কেউ আগুন দিয়েছে বলে মনে হয় না। তবে সন্দেহের জায়গাগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে, কারা জড়িত। 

এদিকে স্থানীয়দের ধারণা, দেশের নারী কৃতি ফুটবলারদের এই প্রতিষ্ঠানটি জাতীয়করণের জন্য প্রক্রিয়াধীন থাকায় প্রতিষ্ঠানের কেউ কেউ উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বাঁধা সৃষ্টি করার লক্ষ্যে শিক্ষকদের সনদপত্র, মেয়েদের খেলার সনদপত্র ও মেডেল, রেজুলেশন বই, কারিগরি শাখার কাগজপত্রসহ প্রয়োজনীয় গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র পুড়িয়ে দেয়া হয়।   

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার ভোররাতে কে বা কারা পরিকল্পিতভাবে আগুন দেয় কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের দু’তলা অফিস কক্ষে। আগুনে বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সনদপত্র, মেয়েদের খেলার সনদপত্র ও মেডেল, রেজুলেশন বই, কারিগরি শাখার কাগজপত্রসহ প্রয়োজনীয় গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র পুড়ে যায়। 

বাংলাদেশ নারী দলের কৃতি ফুটবলার মারিয়া, মার্জিয়া ও সানজিদাসহ বয়সভিত্তিক বিভিন্ন জাতীয় দলে কলসিন্দুর উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের ১০/১২ জন মেয়ে নিয়মিত খেলে। বর্তমানে স্বনামধন্য এই প্রতিষ্ঠানটি জাতীয়করণের প্রক্রিয়াধীন।

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়