logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬

গ্রামীণ সংস্কৃতি ‘গরু আড়ং’ উৎসবে হাজারো মানুষ

ফরিদপুর প্রতিনিধি
|  ১৩ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:২৭ | আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৪৩
গ্রামীণ সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলায় গরু দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে যে গরুটি রাগ যত বেশি প্রদর্শন করবে ও গাছ থেকে দড়ি ছিড়ে চলে যেতে পারবে সেটিকেই পুরস্কৃত করা হয়। যা স্থানীয় ভাবে ডাকা হয় গরু আড়ং উৎসব। ৫ বছর ধরে এলাকাবাসী এ উৎসব পালন করে আসেছেন।

পৌষ সংক্রান্তি উপলক্ষে গরুর রশি ছেড়ার মধ্য দিয়ে রোববার বিকালে উপজেলার বিশাই মাতুব্বরের ডাঙ্গীর পদ্মা পাড়ে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন।

হরিরামপুর ইউনিয়নের মানুষ এটিকে তাদের অন্যতম বড় উৎসব হিসেবে মনে করেন। গরু দৌড়কে কেন্দ্র করে বাড়িতে বাড়িতে আয়োজন করা হয় নানা রকমের পিঠা-পুলির। অতিথিদের নানা আপ্যায়নের মধ্য দিয়ে তৈরি হয় উৎসবের আমেজ। মাঠের দুই পাশে বিভিন্ন পসরা সাজিয়ে বসে গ্রাম্য মেলা। শিশু, কিশোর, নারী-পুরুষ, তরুণ-তরুণীর উপস্থিতিতে মুখর হয়ে ওঠে মাঠের আশপাশ। উৎসবকে ঘিরে মেয়ে-জামাই-নাতি-নাতকুর আর অন্যান্য স্বজনদের আগে ভাগেই দাওয়াত করে বাড়িতে আনেন তারা।

গরুর সাথে মাঠে যেতেই এই স্বজনদের বাড়িতে দাওয়াত করে আনা হয় বলে জানালেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আমির খান। তিনি বলেন, স্বজনের পাশাপাশি প্রতিবেশী নিয়ে গ্রুপ করে বাড়িতে অনুষ্ঠান করে দুপুরে সবাইকে খাওয়ানোর পর গরু নিয়ে সকলে মাঠে আসে। তাই যে যার যার মতো লোক পছন্দ করে আগেই বাড়িতে জড়ো করেন। 

এ অনুষ্ঠানে ইউনিয়ের বিভিন্ন এলাকা থেকে সুসজ্জিত প্রায় শতাধিক গরু ও তার মালিক এবং সমর্থকেরা অংশ নেন।

উৎসবে আসা তানজিনা আক্তার বলেন, দেশের ঐতিহ্য ধরে রাখতে প্রতি বছরের মতো এবারো এই গরু আড়ং এর আয়োজন খেতে এসেছি। মেলা উপলক্ষে কয়েকদিন আগে থেকে আশপাশের বাড়িগুলোতে বাড়তে থাকে অতিথির সংখ্যা। আপ্যায়নের জন্য রকমারি পিঠাপুলির আয়োজন করা হয়। গ্রাম বাংলার মানুষের চিরচেনা এ গরুর রশি ছেঁড়া প্রতিযোগিতার ইতিহাস পুরনো দিনের কথা মনে করিয়ে দেয়।

তিনি বলেন, এ চরের মানুষ অত্যন্ত দরিদ্র। বর্তমান সমাজের যে সুফল তার কোনটিই এদের ভাগ্যে জোটে না। তবুও এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে একটি মহামিলন মেলা হলো সকলে একটি উৎসব মুখর দিন কাটাতে পেলে সকলেই আনন্দিত।

এবার আড়ং এ অংশ নেয়াদের মধ্যে বিচারকদের প্রদত্ব নম্বারের ভিত্তিতে ১ম পুরুস্কার ২১ ইঞ্চি এলইডি টিভি লাভ করেন ঢাকা জেলার দোহার উপজেলার মো: আজিজ মোল্যা, ২য় ও ৩য় পুরুস্কার ২১ ইঞ্চি কালার টিভি লাভ করেন যথাক্রমে দোহারের আসলাম বেপারী ও চরভদ্রাসন উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের শেখ আবুল। এছাড়া প্রতিটি গরুর মালিককে সান্তনা পুরুস্কার হিসেবে একটি করে বালতি দেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, স্থান ভেদে দেশের একেক অঞ্চলে গরুর দাবরানী, গরু দৌড়, গরুর রশি ছেড়া বা আড়ং নামের এই প্রতিযোগিতা বাঙালি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যে পরিচয় তুলে ধরে। একটি খুটির সাথে গরুর রশি বাঁধা থাকে পরে গরুকে ধাওয়া দিলে সে রশি ছিড়ে যায়। পরে এ রশি বিচারকদের কাছে দিতে হয়। বিচারকরা বিজয়ী ঘোষণা করেন।

এমসি / জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়