• ঢাকা শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ছয় বছরেও নির্মাণ হয়নি কালনী ব্রিজের সংযোগ সড়ক

আবেদ মাহমুদ চৌধুরী, স্টাফ রির্পোটার
|  ২২ নভেম্বর ২০১৮, ১২:২৫ | আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০১৮, ১২:৫৩
২১০ মিটার দীর্ঘ দিরাই কালনী ব্রিজ। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের পর ২০১৩ সালে শুরু হয় নির্মাণ কাজ। প্রথমে কাজের অগ্রগতি ছিল। ফলে দুই বছরে শেষ করা হয় নির্মাণ কাজ। নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার পরও উদ্বোধন করা হয়নি দিরাই চাঁনপুরের কালনী ব্রিজ। এরমধ্যে সাড়ে ছয় বছর পার হয়ে গেছে। কিন্তু কোনও সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হয়নি। সরকারি অর্থায়নে এ সংযোগ সড়ক নির্মাণের কথা থাকলেও অর্থ বরাদ্দে ধীরগতির কারণে কাজ শুরু করা যায়নি। এখন সেতু প্রকল্পের উদ্বৃত্ত অর্থেই সংযোগ সড়ক নির্মাণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রকল্প কর্তৃপক্ষ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ)।

প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালে দিরাই চাঁনপুর কালনী সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ২০১৫ সালে শেষ করা হয় ব্রিজটি। ২১০ মিটার দৈর্ঘ্যের এ প্রকল্পের প্রথমে ব্যয় ধরা হয়েছিল ১৮ কোটি ৭২ লাখ ৫৫ হাজার টাকা। পরে ব্যয় বেড়ে প্রায় ২২ কোটি টাকা নির্ধারিত হয়। দীর্ঘ ছয় বছর পার হয়ে গেলেও উদ্বোধন হয়নি চানঁপুর কালনী ব্রিজ। আর সংযোগ সড়ক না থাকায় বাঁশের মাচা তৈরি করে যাতায়াত করছেন স্থানীয়রা। 

western তবে কর্তৃপক্ষ বলছেন, সংযোগ সড়কের বরাদ্দ হয়েছে। আর কাজও শুরু হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে কয়েক মাসের মধ্যে সংযোগ সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ করে উদ্বোধন করা হবে। 

স্থানীয়দের অভিযোগ, সংসদ সদস্য সুরঞ্জিত সেন বেঁচে থাকতেই এই সড়কের কাজ শুরু হয়। নির্মাণের শুরুতে অগ্রগতি ছিল। এমনকি দুই বছরে সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু উনি মারা যাওয়ার পর এই সেতুর কাজে ধীরগতি আসে। এমনকি দিরাই শাল্লার সকল উন্নয়নমূলক কাজ ধীরগতিতে চলছে। বর্তমান সংসদ সদস্য রাজনৈতিক ব্যক্তি না হওয়ায় স্থানীয় কিছু লোক সবকিছু লুটেপুটে খাচ্ছে। আর এদের জন্যই দিরাই শাল্লার উন্নয়নে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। যার ফলে জনগণ বঞ্চিত হচ্ছে নিজেদের অধিকার থেকে।

চাঁনপুর গ্রামের স্বপন বর্মণ বলেন, এই সেতুটি নির্মাণ করা হলে দিরাই ও জগন্নাথপুর উপজেলার মানুষের মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হবে। জগন্নাথপুর উপজেলা থেকে আমরা কম খরচে পণ্য আনতে পারি। এ সেতু নির্মাণের পর থেকেই মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়। কিন্তু এর নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার পরও দুপাশের সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হয়নি। ফলে সেতুটি স্থানীয়দের কোনও কাজেই আসছে না। তাদের দুর্ভোগেরও শেষ হচ্ছে না।

জানা যায়, দিরাই কালনী ব্রিজ থেকে জগন্নাথপুরের কলকলিয়া পর্যন্ত নতুন সড়ক নির্মাণ করা হবে। আর নির্মাণ কাজের ব্যয়ে একশ কোটি টাকা দিয়ে সহায়তা করছেন বিশ্বব্যাংক। তবে এই সড়কটি নির্মাণ করা হলে দিরাই আর সিলেটের দূরত্ব প্রায় ৪০ কিলোমিটার কমে আসবে। সড়কটির দরপত্র আহ্বানের অপেক্ষায় রয়েছে। এখন ভূমি অধিগ্রহণের কাজ চলছে। 

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এ সড়কের ভূমি অধিগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের দেয়ার জন্য প্রায় আড়াই কোটি টাকা হস্তান্তর করা হয়েছে।

দিরাই উপজেলা প্রকৌশলী ইফতেকার হোসেন বলেন, সড়কটি নির্মাণ করবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ। সুনামগঞ্জের একমাত্র বন্যামুক্ত সড়ক হবে এটি। সড়কের উপরের প্রস্থ থাকবে ২৪ ফুট। আর কালনী ব্রিজের সংযোগ সড়কের কাজ চলছে। আশা করা যাচ্ছে কয়েক মাসের মধ্যে সংযোগ সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ হবে।


আরও পড়ুন :

জেবি/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়