• ঢাকা বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১
logo

চাকরি ফিরে পেলেন সেই ইমাম, বাড়ছে বেতনও

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ২১ জুন ২০২৪, ১১:৩৩

গাজীপুরের শ্রীপুরে মসজিদ কমিটির সভাপতির অনুমতি ছাড়া অপর এক সদস্যের গরু কোরবানি দেওয়ার ঘটনায় লাঞ্ছিত ও চাকরিচ্যুতির ঘটনায় ইমাম মাওলানা আবু বক্কর সিদ্দিককে ওই মসজিদেই ইমাম হিসেবে চাকরিতে পুনর্বহাল করেছে মসজিদ কমিটি। এ সময় ওই ইমামের বেতন দেড় হাজার টাকা বাড়িয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দিলে সকলের সম্মতিতে তা গৃহীত হয়।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ওই মসজিদে বসে শ্রীপুর উপজেলা ইমাম সমিতি ও ওলামা পরিষদের নেতারা মসজিদ কমিটির সঙ্গে ঘটনার মীমাংসা করে ইমামকে তার দায়িত্ব ফিরিয়ে দেন।

মাওলানা আবু বক্কর সিদ্দিক (২৫) শেরপুরের নালিতাবাড়ি উপজেলার ফকিরপাড়া গ্রামের জালাল উদ্দীনের ছেলে। সে শ্রীপুর উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের কর্নপুর গ্রামের কর্নপুর মাদরাসার কিতাব বিভাগের শিক্ষার্থী। লেখাপড়ার পাশাপাশি তিনি শ্রীপুর পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের ভাংনাহটি (মধ্যপাড়া) এলাকার বায়তুন মসজিদে ইমামতির দায়িত্ব পালন করতেন।

স্থানীয় মুসল্লিরা জানান, ভাংনাহটি (মধ্যপাড়া) এলাকার বায়তুন জামে মসজিদ কমিটির সভাপতির হাতে লাঞ্চিত ও চাকরিচ্যুতির পর এলাকা ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন ইমাম মাওলানা আবু বক্কর সিদ্দিক। ঘটনার চারদিন পর বিষয়টি মীমাংসা হলে তিনি বৃহস্পতিবার (২০ জুন) দুপুর থেকে ওই মসজিদের ইমামতির দায়িত্ব বুঝে নেন। ইমামের সাথে ঈদের দিন সোমবার (১৭ জুন) তুচ্ছ বিষয় নিয়ে ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ওই মসজিদ কমিটির সভাপতি কফিল উদ্দীন।

পৌরসভার ভাংনাহাটি (মধ্যপাড়া) বায়তুন নূর জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, শ্রীপুর উপজেলা ইমাম সমিতি ও ওলামা পরিষদের নেতৃবৃন্দের মধ্যস্থতায় উভয় পক্ষের সম্মতিতে আমি মসজিদে ইমামিতর চাকরিতে পুনরায় যোগদান করেছি।

মসজিদ কমিটির সভাপতি কফিল উদ্দীন তার ভুল স্বীকার করে বলেন উভয় পক্ষ থেকে সমাধানের জন্য বসা হলে সকলের সম্মতিতে বিষয়টি সমাধান করে ইমামকে চাকরিতে পুনর্বহাল করা হয়েছে। এখন আর আমাদের কারও মাঝে কোনো ক্ষোভ নেই।

শ্রীপুর উপজেলা ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা মুফতি মাহমুদুল হাসান জানান, তুচ্ছ বিষয় নিয়ে একজন ইমাম মসজিদ কমিটির সভাপতির হাতে লাঞ্চিত ও চাকরিচ্যুতি হয়েছিলেন। মসজিদ কমিটির সভাপতি তার ভুল স্বীকার করে ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন। আমরা বসে বিষয়টি সমাধান করেছি। গাজীপুর জেলা ইমাম সমিতির নেতারাসহ আমরা বসে বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছি।

শ্রীপুর পৌরসভার কাউন্সিলর (৪ নং ওয়ার্ড) কামরুজ্জামান মন্ডল জানান, শ্রীপুর উপজেলা ইমাম সমিতি ও ওলামা পরিষদের নেতৃবৃন্দের মধ্যস্থতায় ওই ইমাম তার চাকরি ফিরে পাওয়ায় এবং ঘটনার সমাধান হওয়ায় সকলের জন্য ভালো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সোমবার ঈদের দিন (১৭ জুন) শ্রীপুর পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের ভাংনাহাটি (মধ্যপাড়া) বায়তুন নূর জামে মসজিদের ইমামকে লাঞ্চিত ও চাকরিচ্যুত করেন ওই মসজিদ কমিটির সভাপতি। বিষয়টি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে শ্রীপুর উপজেলা ইমাম সমিতি ও ওলামা পরিষদের সমাধানে এগিয়ে আসেন।

মন্তব্য করুন

  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
ইমাম হোসাইন (রা.)-এর মাথা মোবারক, কারবালা‌ থেকে কায়রো
৩৫ বছর ইমামতি শেষে রাজকীয় বিদায়
মেয়েকে কুপিয়ে মারলেন বাবা
শ্রীপুর উপজেলা সাংবাদিক সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন