• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১
logo

২০০ টন খাদ্যপণ্য গেল সেন্টমার্টিনে

কক্সবাজার প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৪ জুন ২০২৪, ১৫:৪৪
ছবি : সংগৃহীত

মিয়ানমার থেকে নাফনদীতে সেন্টমার্টিনগামী নৌযানে গুলিবর্ষণের কারণে সাত দিন নৌ চলাচল বন্ধ থাকার পর পুনরায় চালু হয়েছে। কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে খাদ্যপণ্য নিয়ে কক্সবাজার শহর থেকে যাত্রা দিয়েছে এমভি বার আউলিয়া নামের জাহাজ।

শুক্রবার (১৪ জুন) দুপুর ২টা ১৫ মিনিটের দিকে কক্সবাজার শহরের নুনিয়ারছড়াস্থ বাঁকখালী নদীর বিআইডব্লিউটিএ ঘাট থেকে জাহাজটি যাত্রা দিয়েছে। জাহাজটিতে ২০০ টন চাল, ডাল, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী রয়েছে। একই সঙ্গে জাহাজে করে ঘরে ফিরছেন নানা প্রয়োজনে আসা সেন্টমার্টিনের দেড় শতাধিক মানুষ।

এমভি বার আউলিয়ার পরিচালক হোসাইন ইসলাম বাহাদুর ও কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইয়ামিন হোসেনের সঙ্গে আলাপকালে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

মো. ইয়ামিন হোসেন জানিয়েছেন, মিয়ানমারের রাখাইনে চলমান সংঘাত ও সেন্টমার্টিন রুটে নৌযানে মিয়ানমার থেকে তিন দফায় গুলিবর্ষণের ঘটনায় ওই রুটে নৌযান চলাচল বন্ধ হয়। যার কারণে দ্বীপের ১০ হাজার বাসিন্দার খাদ্য ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সংকট দেখা দেয়।

তিনি জানান, গত বুধবার (১২ জুন) জেলা প্রশাসনের বিশেষ সভায় বিকল্প পথে সেন্টমার্টিনের যাতায়াতের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ সিদ্ধান্তের আলোকে বৃহস্পতিবার বঙ্গোপসাগরের সাবরাং মুন্ডার ডেইল উপকূল ব্যবহার করে সীমিত পরিসরে যাত্রীবাহী ট্রলার চলাচল শুরু করা হয়েছে। শুক্রবার থেকে খাদ্যপণ্য নিয়ে পাঠানো হল কক্সবাজার শহরের বিআইডব্লিউটিএ ঘাট থেকে ‘এমভি বার আউলিয়া’ নামে একটি জাহাজে। জাহাজে পাঠানো খাদ্য দিয়ে আগামী একমাস দ্বীপের বাসিন্দারা চলতে পারবে।

এডিএম ইয়ামিন হোসেন বলেন, দ্বীপের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সমন্বয় করে জাহাজটি পাঠানো হল। ওখানে সেন্টমার্টিনের অনেক বাসিন্দা জাহাজে করে ঘরে ফিরছেন।

এমভি বার আউলিয়ার পরিচালক হোসাইন ইসলাম বাহাদুর জানান, এই জাহাজটি প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে পর্যটন মৌসুম অক্টোবর থেকে মার্চ পর্যন্ত সেন্টমার্টিনে যাতায়ত করে আসছিল। এখন দ্বীপে প্রয়োজনে জাহাজটি পাঠানো হলো। এটি শনিবার দ্বীপ থেকে কক্সবাজারে ফিরবে। দ্বীপের কোনো মানুষ জরুরি প্রয়োজনে কক্সবাজার এলে ওইদিন আসতে পারবেন। ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য নয়, প্রশাসনের আহ্বান ও দ্বীপের বাসিন্দাদের প্রয়োজনে এটির যাত্রা। প্রশাসন যতদিন বলবেন ততদিন যাত্রা দেওয়া হবে।

মিয়ানমার সীমান্ত থেকে সেন্টমার্টিন দ্বীপে যাতায়তকারি নৌযান লক্ষ্য গুলিবর্ষণের কারণে সাতদিন বন্ধ থাকার পর বৃহস্পতিবার বিজিবি ও কোস্টগার্ডের নিরাপত্তায় শুরু হয়েছে ট্রলার চলাচল। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় মেরিন ড্রাইভ সড়ক-সংলগ্ন টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের মুন্ডারডেইল এলাকার সাগর উপকূলের পয়েন্ট দিয়ে সেন্টমার্টিন থেকে ৩টি ট্রলারযোগে ৩ শতাধিক মানুষ টেকনাফ আসেন। একই সঙ্গে ৩ শতাধিক মানুষ দ্বীপে গেছেন।

মন্তব্য করুন

  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
৩৩ দিন পর টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ চলাচল স্বাভাবিক
ফেরত পাঠানো হয়েছে সেন্টমার্টিনে আসা রোহিঙ্গাবোঝাই ট্রলার
সেন্টমার্টিন নিয়ে বিরূপ মন্তব্যকারীরা স্বাধীনতাবিরোধী: পর্যটনমন্ত্রী
সেন্টমার্টিনে মিয়ানমারের ২ সেনা ও ৩১ রোহিঙ্গার অনুপ্রবেশ