• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত হচ্ছে গাইবান্ধা

গাইবান্ধা প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ০৯ জুন ২০২৪, ১৮:৩২
ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত হচ্ছে গাইবান্ধা
ছবি : আরটিভি

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় আগামী ১১ জুন ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত হচ্ছে গাইবান্ধা জেলা। ওইদিন এ প্রকল্পের আওতায় বাকি থাকা সাঘাটা ও ফুলছড়ি উপজেলাকে ভূমিহীন-গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করা হবে। প্রাকৃতিক বা অন্য কোনো বিশেষ কারণে ব্যক্তি ভূমিহীন বা গৃহহীন হলে তাদেরকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দ্রুততার সঙ্গে পুনর্বাসনের আওতায় আনা হবে।

শনিবার (৮ জুন) দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) জাহিদ হাসান সিদ্দিকী।

ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় গাইবান্ধার চার উপজেলায় জমিসহ নতুন পাকা ঘর পাচ্ছেন আরও ৪০৫টি পরিবার। সেই সঙ্গে সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় জরাজীর্ণ ব্যারাক প্রতিস্থাপন করে একক গৃহনির্মাণের মাধ্যমে ৬৩০টি পরিবারকে জমিসহ ২২৫টি পাকা ঘর প্রদান করা হবে। এ ছাড়া সাঘাটা ও ফুলছড়ি উপজেলাকে ‘ক’ শ্রেণির ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত উপজেলা ঘোষণা করা হবে। এগুলো আগামী ১১ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে ভার্চ্যুয়ালি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ব্রিফিংয়ে আরও জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আওতাধীন আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে সমাজের গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষ আগামী ১১ জুন পঞ্চম পর্যায়ে (দ্বিতীয় ধাপ) জমিসহ ১৮ হাজার ৫৬৬টি পাকা ঘর পাচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় এ পর্যায়ে (পঞ্চম পর্যায়ে দ্বিতীয় ধাপ) জেলার ৪টি উপজেলায় ৪০৫টি ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় জরাজীর্ণ ব্যারাক প্রতিস্থাপন করে একক গৃহনির্মাণের মাধ্যমে মোট ৬৩০টি পরিবারকে জমিসহ ২২৫টি পাকা ঘর প্রধানমন্ত্রী উপহার হিসেবে দিচ্ছেন। ওইদিন প্রধানমন্ত্রী সাঘাটা ও ফুলছড়ি উপজেলাকে ‘ক’ শ্রেণির ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত উপজেলা ঘোষণা করবেন।

ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আরও জানান, ইতোমধ্যে গোবিন্দগঞ্জ, সাদুল্লাপুর, পলাশবাড়ী, গাইবান্ধা সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলাকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ‘ক’ শ্রেণির ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করেছেন।

তবে প্রাকৃতিক বা অন্য কোন বিশেষ কারণে অন্য কোন ব্যক্তি ভূমিহীন বা গৃহহীন হলে তাদেরকে দ্রুততার সঙ্গে পুনর্বাসনের আওতায় আনা হবে বলেও ব্রিফিংয়ে জানান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক।

ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মাঝে গাইবান্ধার সহকারী কমিশনার তাপস চক্রবর্তী তুষার ও গাইবান্ধা সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুলতানা রাজিয়া উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী, গাইবান্ধা জেলার ‘ক’ শ্রেণির ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার সংখ্যা ৮ হাজার ১৮৯টি। এর মধ্যে ১ম পর্যায়ে ৮৪৬টি, ২য় পর্যায়ে ১ হাজার ৪৩০টি, ৩য় পর্যায়ের ২ হাজার ৪১৬টি, ৪র্থ পর্যায়ে ১ হাজার ৮৭২টি ও ৫ম পর্যায়ে (১ম ধাপ) ১৫৪টিসহ সর্বমোট ৬ হাজার ৭১৮টি একক গৃহে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। এ ছাড়াও অন্য উপায়ে ব্যারাক ও গুচ্ছগ্রামে ১ হাজার ৬৬টি ‘ক’ শ্রেণির পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

daraz
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
বিরোধীদলীয় নেতা-উপনেতাকে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছা
প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের নিন্দা জানিয়ে ফখরুলের বিবৃতি
হামলার আঘাত সামলে উঠছেন ড্যানিশ প্রধানমন্ত্রী
পশুর হাটে পুলিশের গুলি, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া