• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা, লাশ নিয়ে ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৫ মে ২০২৪, ১৯:২৬
ছবি : আরটিভি

গোপালগঞ্জে নির্বাচন–পরবর্তী সহিংসতার ঘটনায় নিহত মো. ওয়াসিকুর রহমান ভূঁইয়ার লাশ নিয়ে ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ পালন করছেন বিক্ষুব্ধ জনতা।

বুধবার (১৫ মে) দুপুরে ঢাক-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জের চেচানিয়াকান্দি এ বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করা হয়। সমাবেশে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীসহ জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশ বক্তারা, প্রধানমন্ত্রীর এপিএস-২ গাজী হাফিজুর রহমান লিকু ও গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সদ্য বিজয়ী চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান ভূঁইয়ার অপসারণের দাবিতে বিভিন্ন শ্লোগান দেয়। পরে দুপুর ২টায় গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার ঘটনাস্থলে এসে বিচারের আশ্বাস দিলে আন্দোলনকারীরা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারসহ বিচারের দাবি জানিয়ে অবরোধ তুলে নেয়।

অন্যদিকে বিক্ষোভকারীরা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দাবি আদায় না হলে চন্দ্রদীঘলিয়া বাসস্ট্যান্ডে মহাসড়ক অবরোধসহ বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার ঘোষণা দেয়।

কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শামিম মোল্লা বলেন, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার জন্য প্রধানমন্ত্রীর এপিএস-২ গাজী হাফিজুর রহমান লিকু দায়ী। গোপালগঞ্জের শান্তিপূর্ণ রাজনৈতিক সহ অবস্থান ক্ষমতার অপব্যবহার করে অশান্ত করার অপচেষ্টা করছে সে। এই অপচেষ্টা কখনোই সফল হতে দেবে না সাধারণ জনগণ। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে আমরা এপিএস-২ এর অপসারণ দাবি করছি।

জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ইলিয়াস হক বলেন, যে হত্যার ঘটনা ঘটেছে তা অত্যন্ত ন্যক্কার জনক। এ হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার চাই। আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে বিশ্বাসী। সেহেতু জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার আমাদের আশ্বস্ত করেছেন তাই আমরা সাময়িকভাবে অবরোধ তুলে নিয়েছি। আমরা প্রত্যাশা করছি প্রশাসন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের সনাক্ত ও গ্রেপ্তার করবে।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সফিকুল আলম কাকন, উপপ্রচার সম্পাদক শিমুল চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য পরাজিত প্রার্থী বিএম লিয়াকত আলি, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলিমুজ্জামান বিটু, জেলা যুবলীগের সহসভাপতি শেখ সাহবুদ্দিন হিটু, সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জায়েদ মাহামুদ বাপ্পি, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিউটন মোল্লা প্রমুখ ।

গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার আল-বেলি আফিফা বলেন, আমার ইতোমধ্যে হত্যার বিষয়ে কাজ শুরু করেছি। অবরোধকারীদের সঙ্গে আমরা কথা বলে তাদের আশ্বস্ত করলে তারা অবরোধ তুলে নেয়।

জেলা প্রশাসক কাজি মাহবুবুল আলম বলেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শান্তি পূর্ণ হয়েছে এবং স্বচ্ছ ভাবে ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। দুই প্রার্থীর মধ্যে ভোটের ব্যবধান কম ছিল। আমাদের দেশে একটা কালচার আছে নির্বাচনে পরাজিত হলে বিভিন্ন প্রকার প্রশ্ন তোলা হয়। জেলার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা ও মানুষের জানমালের নিরাপত্তায় পুলিশের পাশাপাশি র‍্যাব, বিজিবি, আনসার ব্যাটেলিয়ন মোতায়েন করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি খুবই দুঃখ জনক। অবৈধ কোন অস্ত্র ব্যবহার হলে তা উদ্ধারের জন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এর আগে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে মর্গ থেকে ওয়াসিকুরে লাশ নিয়ে শোক মিছিল করে আন্দোলনকারীরা। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মহাসড়কে নিয়ে যায়। সেখানে লাশ সামনে রেখে বিক্ষোভ সমাবেশ পালন করে।

প্রসঙ্গত, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের পরবর্তী সহিংসতায় বিজয়ী প্রার্থী কামরুজ্জামান ভূঁইয়া লুটুলের সমর্থকের গুলিতে পরাজিত প্রার্থী বিএম লিয়াকত আলির সমর্থক মো. ওসিকুর ভূঁইয়া (২৭) নামের এক যুবক নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় অপর ৫ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৭টায় গোপালগঞ্জে সদর উপজেলা চন্দ্রদিঘলিয়া ইউনিয়নের চন্দ্রদিঘলিয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য করুন

daraz
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
কেমন আছে মায়ের লাশের পাশে পড়ে থাকা সেই শিশু
ভোটের ফল ঘোষণায় বিলম্ব, ঢাকা–আরিচা মহাসড়ক অবরোধ
পলাশের উপহার পেয়ে আপ্লুত তারিক আনাম
বাবার লাশের এক টুকরো মাংস চাইলেন ডরিন
X
Fresh