• ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

জামিনে মুক্তি পেলেন সেই খালেদা, অঝোরে কাঁদলেন মেয়েকে জড়িয়ে

আরটিভি নিউজ

  ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪৬
বাংলাদেশ
ছবি : সংগৃহীত

এনজিওর ঋণের দায়ে তিন বছরের শিশুকে রেখে কারাগার যাওয়া সেই মা খালেদা পারভিন অবশেষে মুক্ত হয়েছেন। মুক্তি পেয়েই আদরের শিশুকন্যা ফাতেমাকে বুকে জড়িয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।

মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জের কামারখন্দের আমলি আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পান খালেদা।

এর আগে গত ১০ এপ্রিল ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় এনজিওর করা মামলায় খালোদাকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়। তবে গ্রেপ্তারের সময় উল্লাপাড়া মডেল থানা চত্বরে তিন বছরের শিশুকন্যা ফাতেমাকে রেখে পুলিশ ভ্যানে ওঠার মুহূর্তে মা-মেয়ের কান্নায় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। আর সেদিন সেই ছোট শিশুর কান্নাজড়িত মুখ হৃদয়ে দাগ কাটে সবার।

প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর ওই দিন রাতেই বিষয়টি চট্টগ্রামের প্রতিষ্ঠিত বহুজাতিক এক শিল্পপ্রতিষ্ঠানের মালিকের নজরে আসে। চট্টগ্রামের ওই শিল্পপ্রতিষ্ঠান কারাগারে বন্দি খালেদা ঋণ পরিশোধসহ আইনি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন। পরদিন খালেদার সুদসহ ঋণের সব অর্থ পরিশোধ করা হয় ও আইনজীবী নিয়োগ দেওয়া হয়। তবে ঈদের ছুটির কারণে আদালত বন্ধ থাকায় খালেদাকে জামিন করানো সম্ভব হয়নি। পরে মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) আদালত খুললে জামিনে মুক্ত হন খালেদা।

এ বিষয়ে খালেদার স্বামী ইব্রাহিম হোসেন বলেন, ‘উদ্দীপন’ নামের একটি সংস্থা থেকে দুই বছর আগে ৩০ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছিলেন তার স্ত্রী। সংসারের চরম দুর্দিন হওয়ায় খালেদাকে নিয়ে ৬ মাস হলো ঢাকায় পোশাক কারখানায় কাজ নিয়েছিলাম।

ইব্রাহিম হোসেন জানান, এর আগে বেশ কয়েকটি কিস্তিতে তিনি ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। সুদ-আসল মিলে ১৮ হাজার ৩০০ টাকা পেত ওই ঋণদানকারী সংস্থা। ঈদের আগের দিন রাতে সপরিবারে বাড়িতে ফিরলে উদ্দীপনের করা ঋণের মামলায় উল্লাপাড়া থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে খালেদাকে। এ সময় আমার ৩ বছরের মেয়ে ফাতেমার কান্না থামছিল না। মাকে না পেয়ে থানায় মধ্যে অঝোরে কাঁদছিলো ফাতেমা। পরে আদালত খালেদাকে কারাগারে পাঠান।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনাটি প্রকাশ হওয়ার পর আমাদের সব ঋণ পরিশোধ করেন দিয়েছেন একজন। সেই সঙ্গে মামলাটি প্রত্যাহারে সব ব্যবস্থা করেছেন। এখন আর কোনো ঋণ নেই আমাদের। আমাদের এই বিপদে যারা পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের সবার জন্য আমার পরিবারে পক্ষ থেকে অনেক দোয়া রইলো বলেও জানান তিনি।

উদ্দীপন এনজিওর লিগ্যাল এডভাইজার অ্যাডভোকেট সুমন জানান, সুদসহ ঋণের সব অর্থ পরিশোধ করা হয়েছে। এ জন্য আমাদের প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে মামলাটি প্রত্যাহারের সব ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

daraz
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
নগদ ডিজিটাল ব্যাংক নারী উদ্যোক্তাদের বিশেষ ঋণ সহায়তা দেবে: পলক
বৈদেশিক ঋণের প্রকল্প দ্রুত শেষ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
জলবায়ু তহবিল দেশের ওপর ঋণের বোঝা বাড়াচ্ছে: টিআইবি
দেশের ওপর ঋণের বোঝা চাপাচ্ছে জলবায়ু তহবিল: টিআইবি
X
Fresh