• ঢাকা সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

বোরকা পরে পর্যটকদের ব্ল্যাকমেইল করতেন তারা

কক্সবাজার প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ০২ মার্চ ২০২৪, ২০:৩২
বোরকা পরে পর্যটকদের ব্ল্যাকমেইল করতেন তারা
ছবি : আরটিভি

কক্সবাজার হোটেল মোটেল জোনে পর্যটকদের টার্গেট করে ছিনতাই, ব্ল্যাকমেইলিং, মাদক ব্যবসা, মাদক সেবনসহ অসামাজিক কার্যকলাপে সক্রিয় থাকার অভিযোগে অভিযান চালিয়ে একটি চক্রের ২৫ সদস্যকে আটক করেছে ট্যুরিস্ট পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে ৯ জন নারী ও ১৬ জন পুরুষ রয়েছে। তারা কক্সবাজারের মহেশখালী, ঈদগাঁও, সাতকানিয়া ও লক্ষ্মীপুরের বাসিন্দা।

শনিবার (২ মার্চ) ভোর রাতে এ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোন।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত ডিআইজি আপেল মাহমুদ এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, আটককৃত নারী-পুলিশ সংঘবদ্ধ চক্র। তারা কক্সবাজার আগত পর্যটকদের টার্গেট করে কৌশলে তাদের আস্তানায় নিয়ে গিয়ে আটকে রেখে সর্বস্ব লুট করে নেয়। ইতোপূর্বে পর্যটকদের নিরাপত্তা ও পর্যটন জোনকে অপরাধ মুক্ত করতে এ বোরকা বাহিনীকে আইনের আওতায় আনতে ট্যুরিস্ট পুলিশ তাদের নিজস্ব গোয়েন্দা দিয়ে নজরদারি বৃদ্ধি করে। দীর্ঘ তৎপরতায় অবশেষে এ বোরকা বাহিনীর আবিষ্কার করতে পেরেছি আমরা এবং তাদের গোপন আস্তানার সন্ধান পেয়েছি।

তিনি জানান, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাঁর নেতৃত্বে একটি টিম মোটেল জোনের কলাতলী লাইট হাউজ এলাকা সংলগ্ন আবাসিক কটেজ জোন এলাকায় সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় বাহিরে তালাবদ্ধ একটি সাইনবোর্ড বিহীন কটেজে (যা বোরকা বাহিনী গোপন আস্তানা হিসেবে ব্যবহার করে) অভিযান চালিয়ে নারী-পুরুষসহ বাহিনীর ২৫ সদস্যকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন চকরিয়ার উওর কাহারিয়া ঘোনা এলাকার নুরুল আলমের পুত্র মো. ইউনুস, কক্সবাজার শহরের কলাতলীর আব্দুল আজিজের পুত্র ইমাম হোসেন, চকরিয়ার ভরামহুরী এলাকার ফেরদৌস আহমদের পুত্র মো. রুবেল, শহরের কলাতলীর আবুল কালামের পুত্র মো. রাব্বি, লক্ষীপুর লামচর এলাকার মো. হারুনের পুত্র মো. বিপ্লব, কিশোরগঞ্জের সরওয়ার জাহানের পুত্র ইয়াহিয়া, চট্টগ্রাম সাতকানিয়ার বাবুল বড়ুয়ার পুত্র বিপুল বড়ুয়া, চট্টগ্রাম সাতকানিয়ার মৃত অরবিন্দ বড়ুয়ার পুত্র জনপ্রিয় বড়ুয়া, চট্টগ্রাম সাতকানিয়ার মৃত অসীম বড়ুয়ার পুত্র সবুজ বড়ুয়া, মহেশখালীর আব্দুল মোনাফের পুত্র রুবেল, চট্টগ্রাম লোহাগড়ার জাহিদ মোল্লার পুত্র তামিম মোল্লা, নোয়াখালীর বালুচরা এলাকার জাকির হোসেনের পুত্র রিফাত, শহরের নাজিরারটেকের আমান উল্লাহর পুত্র শওকত ওসমান, চট্রগ্রাম আনোয়ারার আবু সৈয়দের পুত্র মো. লোকমান, চকরিয়ার বদরখালীর জামাল উদ্দিনের পুত্র ফোরকান, সিরাজগঞ্জের শরীফ সলঙ্গা এলাকার আব্দুস সামাদের পুত্র মো. নান্নু, গাজীপুর টংগীর মজিবুর হোসেনের মেয়ে নোহা জাহান, ময়মনসিংহ ফরাজিবাড়ি এলাকার মনির হোসেনের স্ত্রী নূরী, ঈদগাঁ পূর্ব নাপিতখালির বেলালের মেয়ে জোবাইদা আক্তার, উখিয়ার জয়নাল উদ্দিনের মেয়ে তানিয়া আক্তার, ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানার সম্রাট আহমেদের মেয়ে আফরিন আক্তার, চট্টগ্রাম বাঁশখালীর আব্দুল মজিদের মেয়ে ঝিনুক, ঈদগাঁও বাঁশখালীর আলী হোসেনের মেয়ে শারমিন, গাজীপুর চৌরাস্তা এলাকার আজগর আলীর মেয়ে ফাতেমা ও ঢাকা মুগদা থানা এলাকার রমজানের মেয়ে নিলা।

এ সময় আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান ট্যুরিস্ট পুলিশের ডিআইজি আপেল মাহমুদ।

মন্তব্য করুন

daraz
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আরসার ৪ সন্ত্রাসী আটক
রাজধানীতে কক্সবাজার এক্সপ্রেসের বগি বিচ্ছিন্ন
সুপ্রিম কোর্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউট পরিদর্শনে প্রধান বিচারপতি
চিংড়ি ঘেরে মিলল ২ জেলের মরদেহ
X
Fresh