• ঢাকা সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

মোটরসাইকেল চুরি করে দুই ইউপি সদস্য কারাগারে

ফেনী প্রতিনিধি

  ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৯:৫৯
ছবি : আরটিভি

মোটরসাইকেল চুরির মামলায় সোনাগাজী উপজেলার ৯নং নবাবপুর ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা আলী আশরাফ সোহেল (৫০) ও ৮নং আমিরাবাদ ইউপি সদস্য গোলাম কিবরিয়া শামীমকে (৫১) কারাগারে পাঠিয়েছেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালত সোনাগাজী।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) সোনাগাজী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিনের জন্য আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে ফেনীর কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী সালেহ উদ্দিন আহমেদ শিমুল জানান, সোনাগাজী উপজেলার চরচান্দিয়া ইউনিয়নের বাখরিয়া গ্রামের নুরুল আমিনের ছেলে সোনাগাজী বাজারের ব্যবসায়ী আব্দুল্লাহ আল নোমান (গাজী নোমান) বাদী হয়ে ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও সোনাগাজী আমলী আদালতে মামলা দায়ের করলে আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআই ফেনীকে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দেন। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ পিবিআই সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে সাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদসহ ব্যাপক তদন্ত করলেও আদালতে পাঠানো রিপোর্টে বাদী অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে নারাজি দেন। পরে আদালত মামলাটি পুনরায় সোনাগাজী মডেল থানাকে তদন্তের নির্দেশ দিলে মডেল থানার উপপরিদর্শক এসআই মাহবুব আলম সরকার মামলাটি পুনরায় তদন্ত করে মোটরসাইকেল চুরির ঘটনায় দুই ইউপি সদস্য ও আরও ৩ জনের সংশ্লিষ্টতা পেয়ে আদালতে তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করে। পরে আদালত তদন্ত রিপোর্টটি আমলে নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সোনাগাজী পৌরসভার রাকিব প্লাজার ‘ব্লু ড্রিম’ নামক প্রতিষ্ঠানের মালিক গাজী নোমান ২০২২ সালের ২৩ অক্টোবর দুপুরের দিকে মার্কেটের নিচে মোটরসাইকেল রেখে দোকানে যায়। বিকেল প্রায় ৪টার দিকে দোকান থেকে নেমে নিচে এসে দেখে তার মোটরসাইকেলটি চুরি হয়ে যায়। এ সময় খোঁজখবর নিয়ে না পেয়ে আশপাশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে মোটরসাইকেল চোর ও চক্রের সদস্যদের পরিচয় শনাক্ত করে গাজী নোমান বাদী হয়ে আমিরাবাদ ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম কিবরিয়া শামীম, নবাবপুর ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত মাস্টার জাফর আহম্মদের ছেলে আলী আশ্রাফ সোহেল মেম্বার, ফেনী সদর উপজেলার দক্ষিণ ফরহাদ নগরের মৃত আলি আহম্মদের ছেলে মিন্টু মিয়াসহ আরও তিনজনের পরিচয় শনাক্ত করে আন্তঃজেলা চোর চক্রের সংঘবদ্ধ সদস্যদের নাম উল্লেখ করে তাদের আসামি করে মামলা করেন।

মামলার বাদী গাজী নোমান জানান, আমি ন্যায়বিচার ও দেশের প্রচলিত আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে মামলা করেছি। আশা করছি, চোরচক্রের সদস্যদের কঠিন বিচার ও আমি ন্যায়বিচার পাবো। আসামিদের কারাগারে পাঠানোর পর থেকে বিভিন্ন মহল থেকে আমাকে হুমকি ধামকি দেওয়া হচ্ছে। এতে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

মন্তব্য করুন

daraz
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
স্বর্ণ ছিনতাই মামলায় রিমান্ডে পুলিশ কর্মকর্তা ও তার সোর্স
তিন থানার মামলায় ৪২ জন কারাগারে
নড়াইলে মাদক মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন
‘নিপুণ মামলাবাজ, ডিপজল-শাকিব খানকে অশিক্ষিত বলেছেন’ 
X
Fresh