Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২২ মে ২০২২, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

বগুড়া প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:০৪
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৪০

ষষ্ঠ ধাপের ইউপি নির্বাচন

বগুড়ায় অর্ধেকের বেশি ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ! 

বগুড়ায় অর্ধেকের বেশি ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ! 
ফাইল ছবি

৩১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ষষ্ঠ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। এই ধাপে বগুড়ার ৪ উপজেলার ২৩টি ইউনিয়নে ভোটগ্ৰহণ করা হবে। ২৩ ইউনিয়নের ২২৮টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১৮১টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এর আগে বগুড়ায় পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভয়াবহ সহিংসতার ঘটনা ঘটেছিল। ফলে ৩১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ষষ্ঠ ধাপের নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। ইতোমধ্যে অতি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র চিহ্নিত করে সেগুলোয় নজরদারি করা হচ্ছে। সুষ্ঠুভাবে ভোট সম্পন্ন করতে নেওয়া হয়েছে সব ধরনের প্রস্তুতি।

ষষ্ঠ ধাপে জেলার ২৩টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ইভিএমের মাধ্যমে। এরমধ্যে রয়েছে সদরের ফাঁপোড় ও রাজাপুর, গাবতলী উপজেলার সোনারায়, সুখানপুর ও নেপাতলী ইউনিয়ন এবং সারিয়াকান্দি উপজেলার ১১টি ও সোনাতলা উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন।

পুলিশের বিশেষ শাখা থেকে জানা যায়, এই ২৩টি ইউনিয়নের ২২৮টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১৮১টি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সারিয়াকান্দি উপজেলার প্রায় সব কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ। আর গাবতলীর সোনারায় ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের জামিরবাড়িয়া খোদেজা হামিদ উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্র ও খুপি মধ্যেপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র অধিক ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র।

সোনারায় ইউনিয়নের দুই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আজাদুর রহমান ও সাইফুল ইসলাম পৃথকভাবে লিখিত অভিযোগে ওই দুটি কেন্দ্রকে নিয়ে শঙ্কার কথা বলেছেন।

সারিয়াকান্দির কর্ণিবাড়ি ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী মাহবুবর রহমান ভোটের প্রত্যেক কেন্দ্রে একজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েনের দাবি জানিয়েছেন। এ রকম বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে একাধিক অভিযোগ আসছে নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের কাছে।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুব আলম শাহ বলেন, জেলায় ষষ্ঠ ধাপের মধ্য দিয়ে শেষ হতে যাচ্ছে ১০৬টি ইউনিয়নের নির্বাচন। ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)-এর মাধ্যমে ভোটগ্ৰহণ করা হবে। সেইসাথে কেন্দ্র ও কেন্দ্রর বাইরে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে জেলা প্রশাসন কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তুলবে। শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আলী হায়দার চৌধুরী বলেন, আগের ধাপের চেয়ে এবার আরও বেশি সতর্ক থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মাঠে থাকবেন।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সালাউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, পঞ্চম ধাপের বিষয়টি মাথায় রেখে আমরা শেষ ধাপের নির্বাচনের দিকে এগোচ্ছি। কোনোভাবে কোনো কেন্দ্রে যেন সহিংসতার ঘটনা না ঘটে সে বিষয়ে আমরা যথেষ্ট পদক্ষেপ নিয়েছি।

এসএস/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS