Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১০ মাঘ ১৪২৮
discover

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে‌ মারধরের প্রতিবাদে ঘর-বা‌ড়ি ভাঙচুর

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে‌ মারধরের প্রতিবাদে ঘর-বা‌ড়ি ভাঙচুর
ছাত্রীকে মারধরের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করেন

স্বামীসহ এক ছাত্রীকে মারধরের প্রতিবাদে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ঘর-বাড়িতে হামলা, ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা দুটি বাড়িতে ও একটি ক্লাবে হামলা ও ভাঙচুর করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সহপাঠীকে মারধরের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) রাত ৯টার দিকে ঢাকা-কুয়াকাটা মহাসড়ক কিছু সময়ের জন্য অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, চরকাউয়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড মেম্বার সাইদুল আলম লিটনের অনুসারী জাহিদ হোসেন জয় নামের এক যুবক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের প্রায়ই উত্যক্ত করত। এর ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের এক ছাত্রী তার স্বামীকে নিয়ে ঘুরতে গেলে আটকে রেখে স্থানীয় যুবক জয়ের নেতৃত্বে লাঞ্ছিত ও মারধর করা হয়। এদিকে এ ঘটনা জানাজানি হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শেখ রাসেল পাঠাগার নামে একটি সংগঠনের কার্যালয় ভাঙচুর করে। পরে ইউপি সদস্য লিটন ও তার অনুসারী জয়ের ঘর বাড়িতে হামলা, ভাঙচুরের অভিযোগ উঠে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রফিকুল ইসলাম ইয়ামিন জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই আনন্দ বাজার এলাকায় এক শিক্ষার্থী তার স্বামীকে নিয়ে ঘুরতে যান। এ সময় তাদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করে মেম্বার লিটনের অনুসারী জয়সহ কয়েকজন। এরপর ছাত্রী ও তার স্বামীকে মারধর করে তারা। বিষয়টি ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষার্থীরা সেখানে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।

সাইদুল আলম লিটনের বাবা আলতাফ হোসেন হাওলাদার বলেন, আমি হাটতে চলতে পারি না। দুই থেকে তিনশো ছেলে এসে আমার ঘর ভাঙচুর করেছে। আমাকে ও আমার স্ত্রীকে মারধর করেছে।

লিটনের মা নুরজাহান বেগম বলেন, কিছু লোক এসে প্রথমে জিজ্ঞেস করে গেছে এটা লিটন মেম্বারের বাড়ি কিনা। আমরা তাদের সঙ্গে কথা বলার জন্য লাইট জ্বালালে সঙ্গে সঙ্গে ভাঙচুর শুরু করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. খোরশেদ আলম বলেন, শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের কথা আমরা শুনেছি। বিষয়টি নিয়ে প্রশাসন কাজ করছে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তবে লিটন মেম্বার জনপ্রতিনিধি সুলভ আচরণ করেননি বিধায় এই ঘটনার উদ্ভব হয়েছে।

জিএম

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS