Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

মাগুরা প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ২৩ নভেম্বর ২০২১, ১৩:৪২
আপডেট : ২৩ নভেম্বর ২০২১, ১৩:৫৪

বাবার কব্জি কেটে দিল ছেলে

বাবার হাতের কব্জি কেটে দিল ছেলে
ফাইল ছবি

সম্পত্তি চেয়ে না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে বাবার হাতের কব্জি কেটে ফেলে দিয়েছে ছোট ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে মাগুরা সদর উপজেলার হাজরাপুর ইউনিয়নের উথলী গ্রামে। মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সকালে বাড়ির পাশের একটি চায়ের দোকানে এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর অবস্থায় বাবা শহীদুল হক সাধুকে (৭০) মাগুরা ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। ঘটনার পর থেকে ছেলে হানিফ মিয়া পলাতক রয়েছেন।

জানা গেছে, বিয়ের পর থেকেই স্ত্রীকে নিয়ে আলাদা থাকতেন হানিফ মিয়া। বাবা শহীদুল হক থাকেন বড় ছেলে গোলাম মোস্তফার সঙ্গে। সংসার আলাদা হয়ে যাওয়ায় মাঝে মধ্যেই কিছু ফসলি জমি লিখে দেওয়ার জন্য বাবাকে চাপ প্রয়োগ করে আসছিল ছোট ছেলে হানিফ।

কিন্তু আচার-আচরণ ভালো না হওয়ায় বাবা ছোট ছেলেকে কোনো সম্পত্তি লিখে দেননি। এ কারণে বাবার ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন ছোট ছেলে। এ নিয়ে বাবা-ছেলের মধ্যে মাঝেমধ্যেই কথা কাটাকাটি হতো। সম্পত্তি না পেয়ে অবশেষে ছোট ছেলে হানিফ ধারালো ছুরি দিয়ে বাবাকে কোপালে বাবার হাতের কবজি কেটে পড়ে যায়।

শহিদুল হকের বড় ছেলে গোলাম মোস্তফা সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আব্বা আজ সকালে বাড়ির পাশে একটি চায়ের দোকানে চা খাচ্ছিলেন। এ সময় হঠাৎ ছোট ভাই ছুরি নিয়ে সেখানে হাজির হয়। সে আব্বাকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে আব্বার হাতের কব্জি কেটে পড়ে যায়।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর আলম বলেন, আমি এখন হাসপাতালে আছি। গুরুতর জখম শহীদুল হকের চিকিৎসা চলছে। এ ঘটনায় জড়িত ছেলে হানিফ মিয়াকে আটকের জন্য পুলিশ চেষ্টা করছে।

এমআই/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS