Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ২২ নভেম্বর ২০২১, ২৩:২১
আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০২১, ২৩:৩৩

স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সঙ্গে পুলিশের মারমুখী আচরণ

স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সঙ্গে পুলিশের মারমুখী আচরণ
ফাইল ছবি

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হাদি জিয়া উদ্দিন আহমেদের সঙ্গে মারমুখী আচরণ ও তার গাড়ি চালক নুর আলমকে মারধরের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে, আলমডাঙ্গা উপজেলার পাঁচটি অস্থায়ী কোভিড টিকাদান কেন্দ্র এখনও বন্ধ রাখা হয়েছে।

সোমবার (২২ নভেম্বর) দুপুরেও চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা. এএসএম মারুফ হাসান, জেলা বিএমএ’র প্রতিনিধিবৃন্দ, জেলার চার উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাসহ জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকারের সঙ্গে বৈঠকে বসেন।

এক ঘণ্টা বৈঠক শেষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সাজিয়া আফরিনকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত টিম গঠন করেন জেলা প্রশাসক। তদন্ত টিম আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেবে। প্রতিবেদন পাওয়ার পরই জেলা প্রশাসন থেকে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়।

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি ডা. মার্টিন হীরক চৌধুরী আরটিভি নিউজকে বলেন, ‘এটা আসলেই দুঃখজনক ঘটনা। ডা. হাদি জিয়া উদ্দিন আহমেদকে মানসিকভাবে লাঞ্ছিত ও তার সঙ্গে অসদাচরণ করা হয়েছে। যা একজন চিকিৎসকের জন্য চরম আপমানজন ঘটনা। এছাড়া তার গাড়ি চালক নুর আলমকে তারই সামনে মারধর করেছে দু’পুলিশ কর্মকর্তা। স্বাস্থ্য কেন্দ্রেই চিকিৎসকরা নিরাপদ নয়। তাহলে আমরা কোথায় নিরাপদ?

এ বিষয়ে আমরা জেলার ১৭জন চিকিৎসক সিভিল সার্জনের সঙ্গে বৈঠক করেছি। তাছাড়া সোমবার জেলা প্রশাসক তিনি সদস্যের তদন্ত টিম গঠন করেছেন। দুই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা না নেওয়া হলে আমরা বৃহত্তর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো।

এমআই/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS