Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮

সিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা, আরটিভি নিউজ

  ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:২৯
আপডেট : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:১৮

আতঙ্কে ঘরবাড়ি ছাড়ছে ২৫ পরিবার

আতঙ্কে ঘরবাড়ি ছাড়ছে ২৫ পরিবার
আতঙ্কে ঘরবাড়ি ছাড়ছে পরিবার

জানমালের নিরাপত্তার অভাব ও আগুনের তাণ্ডবের ভয়ে বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে যাচ্ছে সিরাজগঞ্জ বিএল স্কুল রোডের প্রায় ২৫টি অসহায় পরিবারের লোকজন। সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ভোর রাতে ধানবান্ধি এলাকায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।

সরেজমিনে এলাকা ঘুরে জানা গেছে, গত ১৫ দিন পূর্বে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সামনে রিক্সাওয়ালা হাবিব যাত্রীনামানোর সময় ধানবান্ধি গ্রামের দুলালের পুত্র আশিক (২৫) ও শাকিল (২২) মোটরসাইকেল থেকে রিক্সাওয়ালাকে একটু অন্য জায়গায় যাত্রী নামিয়ে দিতে বলেন। কিন্তু রিক্সাওয়ালা হাবীব তাৎক্ষণিকভাবে যাত্রী নামিয়ে দেওয়ার কারণে আশিক ও শাকিল রিক্সাওয়ারাকে গালে চর থাপ্পর মারেন। স্থানীয় বুদ্দু’র পুত্র আকাশ বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে মীমাংসা করিয়ে দেন। কিন্তু আশিক ও শাকিল তার সংঘবদ্ধ দল নিয়ে এলাকায় এসে হামলায় চালায়। এতেও ক্ষ্যান্ত না হয়ে দফায় দফায় বিভিন্ন সময়ে ধানবান্ধি এলাকায় প্রবেশ করে ব্যাপকভাবে মারপিটের ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে সামাজিকভাবে সাবেক কাউন্সিলর ছাত্তার হাজীসহ দুই এলাকার মুরুব্বিগণ মীমাংসা করে দেন।

বিষয়টি মীমাংসা হওয়ার পরও সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ভোররাতে শহরের ধানবান্ধি এলাকার দুলালের পুত্র আশিক, শাকিল, বিশা পুত্র ছানু, ওহেদের পুত্র জহুরুল, হিমেল, মোস্তফা পুত্র সাবান, জেলানি, হাবিব, মৃত কুরমানের পুত্র সোহেলসহ ২৫ থেকে ৩০ জন অতর্কিতভাবে হামলা করে প্রায় ২৫টি বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করে নিয়ে যায়। লুটপাটের করে নিয়ে যাওয়ার সময় উচ্চস্বরে বলে যায়, ভবিষ্যতে পেট্টোল দিয়ে দিয়ে আগুন লাগিয়ে এলাকা পুড়িয়ে দেওয়া হবে। আগুনে পুড়িয়ে দেওয়ার ভয়ে জীবনের নিরাপত্তা ও বাড়িঘরের আসবাবপত্র নিয়ে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে সাধারণ জনগণ।

নিরাপত্তাহীনতায় হাসেন আলী পুত্র আব্দুল হাকিম, হোসেন স্ত্রী বিউটি খাতুন, কাবেলের পুত্র কালাম, রাজ্জাক স্ত্রী লুৎফা, মৃত আইয়ুব আলী পুত্র আজাদ অভিযোগ করে আরটিভি নিউজকে বলেন, ছানু গং এলাকার ত্রাস। যেকোন সময় আমাদের এলাকা আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দিতে পারে। তাই আমরা আমাদের পরিবার ও আসবাবপত্র অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। জীবনের নিরাপত্তা দিতে দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিকট আকুল আবেদনও জানান অসহায় পরিবারগুলো।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, ভোর রাতে এলাকায় সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। একজনকে আটক করা হয়েছে। তবে কোনো পক্ষ থেকেই আমাদের নিকট কোন অভিযোগ দাখিল করা হয়নি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোপ্তিক আহম্মেদ আরটিভি নিউজকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে মহল্লায় মহল্লায় সংঘর্ষ চলে আসছিল। ১৩ সেপ্টেম্বর ভোর রাতে অর্তকিতভাবে হামলায় চালানো হয়। এ হামলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। হামলাকারীদের চিহ্নিত করা হয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে ভোর থেকেই বিএল স্কুল রোডে অতিরিক্ত স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োজিত করা হয়েছে।

এমআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS