Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮
  ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:২৪
আপডেট : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:২৩

দেশে তাজমহলের আদলে ৫০ কোটি টাকায় নির্মাণ হচ্ছে মসজিদ

উত্তরবঙ্গের সর্ববৃহৎ মসজিদ নির্মাণ হচ্ছে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার আফতাবগঞ্জ বাজারে। জামে মসজিদটি নির্মাণ করছেন দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক ও তার পরিবার। নান্দনিক কারুকার্য আর নয়নাভিরাম মসজিদটি দূর থেকে দেখলে আগ্রার তাজমহল বা রাজ প্রাসাদের মতো মনে হয়।

২০১৫ সালে শুরু হওয়া এই মসজিদটির নির্মাণ কাজ শেষ হবে ২০২৫ সালে। নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৫০ কোটি টাকার বেশি। ১০ হাজার স্কয়ার ফুটে এই মসজিদে ১৬টি পিলারের উপরে রয়েছে ৩২টি ছোট মিনার। এছাড়াও চার কোনায় সুউচ্চ মূল গম্বুজ আছে। প্রতিটির উচ্চতা ৯৭ ফিট। ভারত, চীন ও ইতালির মার্বেল পাথর, গ্রানাইড ও মূল্যবান কাঠ ব্যবহার করা হয়েছে এখানে। মসজিদটির নকশায় সাদা মারবেল পাথরের উপরে ফুলদানি, ফুলের ঝাড়, গোলাপ ফুল, চাঁদ-তারা, নক্ষত্র ও আরবি কেলোগ্রাফিক লিপি স্থান পেয়েছে।

তিনতালার এই মসজিদের নিচে রয়েছে লাইব্রেরি, সেমিনার কক্ষ, ইমাম ও খাদেমের আবাসন ব্যবস্থা। সকল তলাতেই রয়েছে নামাজরে ব্যবস্থা। কেন্দ্রীয়ভাবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ও মসজিদের সামনে থাকবে নান্দনিক ফোয়ারা।

মসজিদটি নির্মাণে কর্মরত মিস্ত্রিরা আরটিভি নিউজকে জানান, মসজিদটি নির্মাণে প্রতিদিন কাজ করছে ডিজাইনার, টেকনিশিয়ান রাজমিস্ত্রিসহ ৪০ থেকে ৬০ জন। ২০১৫ সাল থেকে তারা এই মসজিদ নির্মাণ কাজে নিয়োজিত আছেন।

মসজিদটি দেখতে আসা দর্শনার্থীরা আরটিভি নিউজকে জানান, মসজিদের নান্দনিক সৌন্দর্য দেখতে তারা আফতাবগঞ্জে এসেছেন। মসজিদটি দেখে তাদের অনেক ভালো লেগেছে। কারণ এটি তাজমহলরে মতোই কিছুটা দেখতে।

মসজিদ নির্মাতা দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক আরটিভি নিউজকে বলেন, তাজমহলকে অনুসরণ করে আফতাবগঞ্জে নান্দনিক ও আধুনিক স্থাপত্যের সংমিশ্রণে প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যায়ে মসজদিটি নির্মাণ করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত প্রায় ১০ কোটির বেশি টাকা ব্যয় হয়েছে। এক বিঘা জমির উপর নির্মিত মসজিদটিতে এক সঙ্গে ৫ হাজার মুসল্লি জামাতে নামাজ আদায় করতে পারবেন। চলতি বছরের জুন মাস থেকেই মুসল্লিরা জামাতে নামাজ আদায় করছেন।

ইজে/এসএস

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS