Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

অভাবের টানে ৪৫ হাজার টাকায় শিশু বিক্রি, ফিরিয়ে দিলেন ইউএনও

অভাবের টানে ৪৫ হাজার টাকায় শিশু বিক্রি, ফিরিয়ে দিলেন ইউএনও
অভাবের টানে ৪৫ হাজার টাকায় শিশু বিক্রি, ফিরিয়ে দিলেন ইউএনও

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে করোনাভাইরাসে কর্মহীন হয়ে অর্থাভাবে ৪৫ হাজার টাকায় তিন মাসের সন্তানকে বিক্রি করে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে ১৬ দিন পর স্থানীয় প্রশাসন শুক্রবার (১৬ জুলাই) শিশুটিকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছেন।

জানা গেছে, উপজেলার নগদাশিমলা ইউনিয়নের সৈয়দপুর পূর্বপাড়া গ্রামের দিনমজুর শাহ আলম ও রাবেয়া দম্পতির তিন পুত্র সন্তান। দিনমজুর শাহ আলমের উপার্জনে পাঁচজনের সংসার চলতো না। এরই মধ্যে করোনায় কয়েকমাস ধরে বেকার শাহ আলম। বেশ কিছু ঋণও রয়েছে। পাওনাদাররা প্রতিদিনই সেজন্য তাগাদা দিচ্ছিলেন। হতাশায় সে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। এমতাবস্থায় পাওনা টাকা পরিশোধ ও সংসারের অভাব অনটনের কারণে তিনমাস বয়সী শিশুকে বাইশকাইল গৈজারপাড়া গ্রামের সবুজ মিয়া ও স্বপ্না দম্পতির কাছে ৪৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেয়।

এ বিষয়ে গোপালপুর থানার ওসি মোশাররফ হোসেন বলেন, সবুজ ও স্বপ্না দম্পতি নিঃসন্তান। তারা শাহ আলম-রাবেয়া দম্পতির অভাব অনটনের সুযোগ নিয়ে টাকার বিনিময়ে শিশুটি কিনে নেয়। আদালতের অনুমতি নিয়ে দত্তক নেওয়ার বিধান রয়েছে। কিন্তু তারা সেটি করেনি। এমতাবস্থায় প্রশাসন সবুজ মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে শিশু আলহাজকে উদ্ধার করে মা রাবেয়া বেগমের কোলে পৌঁছে দেয়। কেউ আগ্রহ প্রকাশ না করায় এবং মানবিক দিক বিবেচনায় থানায় কোন মামলা নেয়া হয়নি।

গোপালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পারভেজ মল্লিক জানান, ঘটনার নেপথ্যে দারিদ্র্যতা। পরিবারটিকে সার্বিকভাবে সহায়তা দেয়া হচ্ছে। রাবেয়া বেগমকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে আয়া পদে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তাও দেয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি বলেন, ওই শিশুর যাবতীয় ভরণপোষণ ও লেখাপড়ার দায়িত্ব নেওয়া হবে।

পি

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS