logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮

মেয়েকে যৌন হয়রানি, প্রতিবাদ করায় মা-ভাইকে পিটিয়ে আহত

The mother-brother was beaten and injured for sexually harassing the girl and protesting
মেয়েকে যৌন হয়রানি, প্রতিবাদ করায় মা-ভাইকে পিটিয়ে আহত

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার চরপাতা ইউনিয়নে এক মাদরাসাছাত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বিধবা মা ও ভাইকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে।

বুধবার (৭ এপ্রিল) রাতে এ ঘটনায় আহত মায়া বেগম থানায় ৩ জনের নামে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগকারী আহত মায়া একই গ্রামের মৃত আয়াত উল্যার স্ত্রী।

অভিযুক্তরা হলেন, উপজেলার চরপাতা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড পশ্চিম চরপাতা গ্রামের আবুল খায়ের, তার ছেলে মো. সিয়াম ও একই এলাকার সফি উল্যার ছেলে মো. সোহেল।

জানা গেছে, ৩ মেয়ে ও ৪ ছেলেকে নিয়ে বিধবা মায়া বেগমের সংসার। তার ছোট মেয়ে চরপাতার গাজীনগর দাখিল মাদরাসার অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী। একই গ্রামের সিয়াম ও সোহেল ওই ছাত্রীকে বিভিন্ন সময় উত্ত্যক্ত করে আসছেন। তাদের কারণে ছাত্রী বাড়ি থেকে স্বাভাবিকভাবে বের হতে পারছে না। তাকে পথিমধ্যে দেখলেই সিয়াম ও সোহেল যৌন হয়রানিমূলক কথা বলেন।

কিছু দিন পর এই বিষয়ে মায়া তাদের অভিভাবকদের কাছে নালিশ করেন। তাতেও কোনো লাভ হয়নি। নালিশ করার কারণে ৫ এপ্রিল রাতে বাড়িতে ঢুকে সবার সামনে মায়ার ওপর অভিযুক্ত সিয়ামের বাবা আবুল খায়ের হামলা করেন। এ সময় খায়েরের হাতে থাকা কাঠ দিয়ে পিটিয়ে মায়াকে আহত করা হয়। মায়ার ছেলে বিল্লাল হোসেন এগিয়ে এলে তাকেও এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করা হয়। এর পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে খায়ের ঘটনাস্থল থেকে চলে যান। আহত অবস্থায় মায়া ও বিল্লালকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

অভিযোগকারী মায়া বেগম বলেন, সিয়াম ও সোহেল এলাকায় বখাটে হিসেবে পরিচিত। আমার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করায় অভিভাবকদের কাছে তাদের বিরুদ্ধে নালিশ করেছিলাম। কিন্তু উল্টো সিয়ামের বাবা খায়ের আমার ঘরের সামনে এসে পিটিয়ে ডান হাতের আঙুল ভেঙে দিয়েছে।

এই ঘটনার বিষয়ে রায়পুর থানার কর্তব্যরত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জাহাঙ্গীর বলেন, আহত মায়া বেগমের অভিযোগটি পেয়েছি। বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জিএম

RTV Drama
RTVPLUS