logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮

রাতভর কাঁদলেন মা

রাতভর কাঁদলেন মা

মাথার উপর গাছ ছিল। পেছনে দাঁড়ানো কিশোর ছেলে। এরপরও চারদিকের ঘুটঘুটে অন্ধকার যেন ছেয়ে ফেলছিলো তাকে। একটি চেয়ারে বসে অঝোর ধারায় কাঁদছিলেন তিনি। সেই কান্নায় স্পষ্ট স্বপ্ন ভাঙ্গার কষ্ট।

হাফিজুল ইসলাম শহরের নয়ামাটি এলাকায় হোসিয়ারি কারখানায় কাজ করেন। বছর দেড়েক আগে বিয়ে করেছেন, ১ বছরের একটি সন্তান রয়েছে তাদের। লকডাউনে কারখানা বন্ধ থাকায় গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। রোববার বিকেলে শহরের বাবুরাইলের ভাড়া বাসা থেকে বেরিয়ে নারায়ণগঞ্জ লঞ্চ ঘাট যান হাফিজুল। সঙ্গে ছিলেন তার স্ত্রী ও ১ বছরের শিশু সন্তান। ঘাট থেকে উঠেন সাবিত আল হাসান নামক লঞ্চে। যাত্রীবাহী এ লঞ্চ দিয়ে তারা প্রথমে যাবেন মুন্সিগঞ্জ লঞ্চঘাট। এরপর সেখান থেকে বরিশালের লঞ্চে উঠবেন। তবে শেষ পর্যন্ত সৈয়দপুর পর্যন্ত যেতে পেরেছিলেন তারা। আর সেই সৈয়দপুরে বসেই হাফিজুলের মা সারা রাত কাঁদেন।

রোববার সন্ধ্যা ৬টা ৩৫ মিনিটে সাবিত আল হাসান নামক ছোট্ট লঞ্চটি নারায়ণগঞ্জ লঞ্চ ঘাট থেকে মুন্সিগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেলে সৈয়দপুর কয়লা ঘাটের সামনে এসকে থ্রি নামক একটি লাইটার জাহাজ লঞ্চটিকে ধাক্কা দেয়। সাথে সাথে শীতলক্ষ্যায় ডুবে যায় সাবিত আল হাসান। রাতেই ৫ নারী যাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সোমবার রাত ৮টা পর্যন্ত মরদেহের সংখ্যা দাঁড়ায় ৩০ এ। তাদের মধ্যে হাফিজুলের মরদেহও রয়েছে। উদ্ধার হয়েছে হাফিজুলের স্ত্রী তাহমিনা ও ১ বছরের সন্তান আব্দুল্লাহর লাশও।

হাফিজুলের ছোট ভাই মইন জানান, লঞ্চে উঠেও তার ভাবী তাদের মোবাইলে কল দিয়েছিলেন। ভাবীর মোবাইল ফোনটি ওই লঞ্চের বেঁচে যাওয়া আরেক যাত্রী পায়। তবে ফোনটি পানিতে ভিজে নষ্ট হলে সিমটি ওই ব্যক্তি তার ফোনে সেট করেন। তার উদ্দেশ্য ছিল, যদি কেউ কল করে তবে দুর্ঘটনার খবর জানাতে পারবেন। ওই ব্যক্তির মাধ্যমেই প্রথমে দুর্ঘটনার খবর পান তারা।

খবর পেয়েই ছোট ছেলে মইনকে নিয়ে সৈয়দপুর কয়লাঘাট এলাকায় ছুটে আসেন মা। প্রথমে অসংখ্য মানুষের ভিড় ঠেলে নদীর তীরে ছুটে যান। সেখানে অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে একটু উপরে উঠে গাছতলায় একটি চেয়ারে বসেন। ঘটনাস্থল আসার পর থেকেই অনবরত কাঁদছিলেন সেই মা। প্রিয় সন্তান, তার স্ত্রী আর নাতির কথা মনে করে চোখের জল ফেলছিলেন। রাতভর তার এ কান্নার পর দুপুরে নাড়ি ছেড়া ধনের মরদেহ দেখেন। একসাথে ছেলে, ছেলের বউ আর আদরের নাতিকে হারিয়ে পাগল প্রায় তিনি।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS