logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮

লকডাউনের খবরে রাজধানী ছাড়ছে মানুষ

ঢাকা ছাড়ছে মানুষ।

আবারো করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সোমবার থেকে এক সপ্তাহের জন্য সারাদেশে লকডাউন দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার, আর তাতেই রাজধানী ছাড়ার হিড়িক লেগেছে মানুষের মধ্যে।

গতকাল সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের এমন ঘোষণার পরই বাস টার্মিনাল, লঞ্চঘাট ও রেল স্টেশনে ছুটতে শুরু করেছেন ঘরমুখো মানুষ।

শনিবার (৩ এপ্রিল) সিট না পেয়ে আজকেও ঘরমুখো যাত্রীদের হুড়োহুড়ি দেখা গেছে স্টেশন-টার্মিনালগুলোতে।

মহাখালী, সায়েদাবাদ ও গাবতলি বাস টার্মিনালে টিকিটের জন্য যাত্রীদের দীর্ঘ লাইন লক্ষ্য করা গেছে। গতকাল রাত পর্যন্ত একই অবস্থা ছিল। এরপর আজ সকাল থেকে আবারো একি অবস্থা রয়েছে। সবখানেই এখন যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড়। এদিকে সন্ধ্যার পর রাজধানী ছেড়ে যাওয়া মানুষের ঢল নামে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে। তবে কমলাপুর রেল স্টেশনে যাত্রী ধারণের অর্ধেক টিকিট দেওয়া হচ্ছে ট্রেনে। সেজন্য যাত্রী বাড়লেও গাদাগাদি করে যেতে দেখা যায়নি।

লকডাউনে গণপরিবহন বন্ধ থাকার আশঙ্কাতেই মানুষ ছুটতে শুরু করেছে বাড়ির পথে। এদিকে সামাজিক দূরত্ব কিংবা স্বাস্থ্যবিধি মানার বালই নাই কোথাওই।রাস্তায়ও জানজট শুরু হয়েছে ঘোষণার পর থেকেই। এদিকে টার্মিনাল-স্টেশন,বাজার ও শপিং মলগুলোতে এমন গাদাগাদি অবস্থা করোনা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ রূপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

যাত্রীরা বলছেন, লকডাউন দেয়া হলে অফিস বন্ধ থাকবে রাজধানীতে থেকে কী করবেন। অনেকেই আবার লকডাউনের সময় বর্ধিত হওয়ার আশঙ্কাও করছেন।আর যারা বিভিন্ন কাজে ঢাকায় এসেছেন তারা এক সপ্তাহের জন্য আটকে পরার ভয়ে দ্রুত চলে যাচ্ছেন।

উল্লেখ্য, গেলো বছর করোনা সংক্রমণ শুরুর পর ২৫ মার্চ সাধারণ ছুটি শুরু হয়। ঝুঁকি বিবেচনায় দফায় দফায় সাধারণ ছুটি বাড়ানো হয়েছে। তখন বন্ধ হয়ে যায় গণপরিবহন। প্রায় দুই মাস পর ১ জুন থেকে যাত্রীবাহী গাড়ি চলাচল শুরু হয়।

এম

RTV Drama
RTVPLUS