Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ৮ বৈশাখ ১৪২৮

কাফনের কাপড় কেনার কথা বলে শ্যালকের বৌকে নিয়ে প্রেমিকের বিষপান

বিষ×প্রেমিক×রাশিদা×সখ্য×পরিবার×শোধরানো×ননদাই×সাগর×
প্রতিকী ছবি

ননদাইয়ের সঙ্গে শ্যালকের স্ত্রীর পরকীয়া সম্পর্কে বাধ সাধায় পরিবারের ওপর ক্ষোভে একসঙ্গে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে প্রেমিক জুটি।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যার পর গ্রামের মাঠে ভুট্টাক্ষতে গিয়ে তারা বিষপান করেন। দুজনকে উদ্ধার করে নেয়া হয়েছে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে। তারা হলেন সাগর রাশিদা। তারা হাসপাতালের দুই ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর গ্রামের চৌধুরীপাড়ায়।

জানা গেছে, দামুড়হুদার জয়রামপুর গ্রামের আবদুল খালেকের ছেলে ট্রাক হেলপার সাগর (২৭) বছর দশেক আগে একই গ্রামে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে রয়েছে সাত বছরের এক ছেলে। অপরদিকে সাগরের মামাতো শ্যালক মামুন বছর ছয়েক আগে বিয়ে করেন একই উপজেলার উজিরপুর গ্রামের আছের আলীর মেয়ে রাশিদাকে। তাদেরও রয়েছে পাঁচ বছরের এক ছেলে তিন বছরের এক মেয়ে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই রাশিদার সঙ্গে সখ্য গড়ে ওঠে ননদাই সাগরের। একপর্যায়ে তা পরকীয়া সম্পর্কে গড়ায়। বিষয়টি জানাজানি হলে দুই পরিবারের পক্ষ থেকেই তাদের শোধরানোর জন্য বলা হয়। কিন্তু অনড় অবস্থানে থাকা সাগর-রাশিদা জুটি তাদের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়া কিছুতেই মেনে নিতে পারেনি। সম্প্রতি শ্বশুরবাড়ি থেকে বাপের বাড়িও চলে যায় রাশিদা। বুধবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের পর সন্ধ্যায় জয়রামপুর গ্রামের মাঠে যান পরকীয়া জুটি সাগর রাশিদা। সেখানেই তারা আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়ে দুজনে একসঙ্গে বিষপান করেন। এসময় তারা কাফন কেনার জন্য মোবাইল ফোনে স্বজনদেরকে জানান। খবর পেয়ে নিকটাত্মীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাগর বলেছেন, মামাতো শ্যালক মামুনের স্ত্রী রাশিদার সঙ্গে আমার অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে বলে পরিবারের লোকজন খুব অশান্তি করে। ফলে আমরা দুজনে সিদ্ধান্ত নিই একসঙ্গে আত্মহত্যা করব।

রাশিদা খাতুন বলেছেন, বছর চারেক ধরে সাগরকে নিয়ে আমার পরিবারে অশান্তি চলছে। সাগরের সঙ্গে আমার শুধু ননদাইয়ের মতোই সম্পর্ক। কিন্তু সাগরের সঙ্গে আমার পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে বলে শ্বশুরবাড়ির লোকজন প্রায়ই নির্যাতন করে। দুই মাস আগে আমি বাপের বাড়ি চলে যাই। সপ্তাহখানেক শ্বশুরবাড়ি গিয়ে - দিনও থাকতে পারিনি। অবশেষে সাগরের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলে বুধবার সন্ধ্যার পর আবারও জয়রামপুরে যাই। রাতে গ্রামের মাঠে গিয়ে দুজনে একসঙ্গে বিষপান করি।

জেবি

RTV Drama
RTVPLUS