logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১ ফাল্গুন ১৪২৭

টিটুর ইজিবাইকে উঠে তিনবার সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার মেয়েটি

মেয়ে×চাঁদপুর×প্রতিবন্ধী×ঘটনা×চৌকিদার×কিশোরী×জোছনা×বাংলাদেশ×
ছবি আরটিভি নিউজ

চাঁদপুরে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কিশোরী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনার শিকার কিশোরীটির মা জোছনা বেগম বাদী হয়ে ছয়জনকে অভিযুক্ত করে ফরিদগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করলে পুলিশ চারজনকে আটক করে। আটকৃতরা হলো, একই বাড়ির জামাল হোসেনের ছেলে ইজিবাইক চালক টিটু (২০), আইটপাড়া গ্রামের আ. মান্নানের ছেলে শিপন (২৫), ভূলাচৌ গ্রামের মৃত আবু বকর সিদ্দিক কালুর ছেলে মিজানুর রহমান রিপন (৪৫), কামতা গ্রামের শরাফত আলীর ছেলে চৌকিদার (গ্রাম পুলিশ) আ. মালেক (৪৫)। এদিন আসামিদের চাঁদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে। ফরিদগঞ্জ উপজেলার সুবিদপুর পশ্চিম ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে।

থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে জানা গেছে, গেলো ১১ জানুয়ারি সোমবার বিকেলেলে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কিশোরীটি বুকের ব্যথার ওষুধ কেনার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে একই বাড়ির জামাল হোসেনের ছেলে ইজিবাইক চালক টিটু কৌশলে তার ইজিবাইকে তুলে নিয়ে কিশোরীকে পার্শ্ববর্তী একটি বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর তাকে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে রাত হয়ে গেলে টিটু ও তার সহযোগী অন্যরা পালাক্রমে দ্বিতীয়বার ইউনিয়নে পরিষদ ভবন এলাকায় এবং সবশেষ পার্শ্ববর্তী একটি বাগানে নিয়ে আবারও ধর্ষণ করে ওই বাগানের পাশে ফেলে রেখে যায়। এভাবে কৌশলে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ করেছে গ্রাম পুলিশ, সিএনজি স্কুটার ও ইজিবাইক চালকসহ ছয় যুবক।

পরে আশপাশের লোকজন টের পেয়ে কিশোরীটিকে উদ্ধার করে তার বাড়িতে পৌঁছে দেয়। বাড়ি ফিরে কিশোরীটি পরিবারের লোকজনকে এ ঘটনা জানায়। এরপর স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করে এলাকার কিছু প্রভাবশালীরা।

এ বিষয় ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শহিদ হোসেন জানান, সোমবার রাতে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে অভিযানে বের হয়। রাতভর অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করে। পরে মঙ্গলবার দুপুরে আরেকজনকে আটক করতে সক্ষম হয়। বাকিদেরকে আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। কিশোরীটিকে উদ্ধার করে পরবর্তী আইনি পদক্ষেপের জন্য ও আটককৃতদের চাঁদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

জেবি

RTV Drama
RTVPLUS