logo
  • ঢাকা সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭

নাফ নদী থেকে পাঁচ লাখ পিস ইয়াবাসহ অস্ত্র উদ্ধার

বিষয়টি×রোববার×নদী×নৌকা×বাংলাদেশ×মধ্যবর্তী×রোবট×ইয়াবা×
ছবি সংগৃহীত

টেকনাফে নাফ নদীতে মাদক কারবারী-বিজিবির মধ্যে গোলাগুলির পর অভিযান চালিয়ে পাঁচ লাখ ২০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশীয় অস্ত্র, দুই রাউন্ড কার্তুজ ও একটি কিরিচ উদ্ধার করেছে।

আজ রোববার ভোরে অভিযান পরিচালনা করে ওই ইয়াবাসহ অস্ত্র আটক করতে সক্ষম হয়।

বিষয়টি আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নিশ্চিত করেছে টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান (পিএসসি)।

আজ রোববার দুপুরে টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের হল রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান সাংবাদিকদের জানান, ভোর রাত সোয়া তিনটার দিকে টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের দমদমিয়া বিওপির জওয়ানেরা মিয়ানমার হতে বড় ধরনের মাদকের চালান আসার সংবাদ পেয়ে নাফনদী স্পিডবোটে ও কাঠের বোট এবং স্থলভাগে কৌশলী অবস্থান নেয়।

কিছুক্ষণ পর নাইট ডিভাইস দ্বারা পর্যবেক্ষণে দেখা যায় নাফ নদীর মধ্যবর্তী লালদ্বীপ হতে একটি কাঠের নৌকা নিয়ে ৩-৪ জন দুষ্কৃতকারী জাদিমোরা উমরখাল পয়েন্ট দিয়ে বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করতে চাইলে বিজিবি চারদিক থেকে ঘেরাও করে অভিযান চালায়।

তখন দুষ্কৃতীকারীরা নিরুপায় হয়ে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করলে বিজিবি কৌশলী অবস্থান নেয়। তখন বিজিবি সরকারি সম্পদ ও আত্মরক্ষার্থে বিজিবি পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে মাদককারবারীরা গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নদীতে লাফ দেয়।

তখন তাদের ব্যবহৃত কাঠের নৌকাটি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে তল্লাশি চালিয়ে পাঁচটি বস্তায় পাঁচ লাখ ২০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি লম্বা বন্দুক, দুই রাউন্ড কার্তুজ ও একটি কিরিচ উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করে সরকারি দায়িত্ব পালনে বাধা প্রদান ও মাদক বহনে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

এই সীমান্তকে মাদক ও চোরাচালানমুক্ত করতে বিজিবি জওয়ানেরা আরও কঠোর এবং সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

জেবি

RTV Drama
RTVPLUS