logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭

গৃহবধূ রিয়া হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি নাজমুল গ্রেপ্তার

গৃহবধূ রিয়া হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি নাজমুল গ্রেপ্তার
মুন্সীগঞ্জে চাঞ্চল্যকর মেধাবীছাত্রী গৃহবধূ কনিকা আক্তার রিয়া হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি মো. নাজমুলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ এলাকা থেকে স্থানীয় পুলিশের সহযোগিতায় মুন্সীগঞ্জ পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃত মো. নাজমুল হোসেন নিহত কনিকা আক্তার রিয়ার স্বামী। বর্তমানে তাকে মুন্সীগঞ্জ সদর থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। 

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আবু বক্কর সিদ্দিক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মুন্সীগঞ্জ পুলিশের একটি বিশেষ টিম আসামিকে গ্রেপ্তার করার জন্য তার মুঠোফোনে ট্র্যাকিং করে অবস্থান সনাক্ত করে। জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জে তিনি অবস্থান করছিলেন। পরে স্থানীয় পুলিশের সহযোগিতায় আসামি মো. নাজমুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ ডিসেম্বর মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মোল্লাকান্দি ইউপির মাকহাটি গ্রামে শশুরবাড়ির বাথরুম থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় সরকারি হরগঙ্গা কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের মেধাবীছাত্রী গৃহবধূ কণিকা আক্তার রিয়ার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। রিয়া ওই গ্রামের সামছুল সৈয়ালের ছেলে মো. নাজমুল হোসেনের স্ত্রী ও একই ইউপির রাজারচর গ্রামের মাসুদ মিঝির কন্যা। 

দেড়বছর আগে মুঠোফোনে রিয়ার সঙ্গে নাজমুলের বিয়ে হয়। গত ৩০ ডিসেম্বর বুধবার স্বামী মো: নাজমুল হোসেন বাপের বাড়ি থেকে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে আসেন স্ত্রী রিয়াকে। 

বিয়ের পর থেকে নাজমুল হোসেন বিভিন্ন সময় টাকা দাবী করে  রিয়ার ওপর অমানুষিক অত্যাচার করে আসছিলেন দাবী নিহত রিয়ার পরিবারের।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গৃহবধূ কনিকা আক্তার রিয়া মৃত্যুর ঘটনায় মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় গত ০২/০১/২০২১ তারিখে আত্মহত্যার প্ররোচনার অপরাধে একটি মামলা রুজু করা হয়। এ মামলায় নিহত কনিকা আক্তার রিয়ার স্বামী মো. নাজমুল ইসলামকে প্রধান করে ৫ জনকে আসামী করা হয়। 

অন্য আসামিরা হলেন- মো. সামসুল ইসলাম সৈয়াল (৫৫), মো. সাব্বির হোসেন সৈয়াল (২২), শান্তা বেগম (২৫), নাজু বেগম নাজমা (৪৮)। এদের সবার বাড়ি সদর উপজেলার মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের পূর্ব-মাকহাটি গ্রামে।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS