logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭

চট্টগ্রামে করোনা রোগীর সংখ্যা লাফিয়ে বাড়ছে

Coronavirus test
করোনাভাইরাস পরীক্ষা
চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। সবশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছেন ১৮৩ জন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্ত হলেন ২৪ হাজার ৫৩ জনে । 

এরই মধ্যে রোববার করোনা শনাক্ত হয়েছিলো ২৪২ জনের । আর  শনিবার আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হন ১৪৫ জন। 

শহরে আক্রান্তের হার বেশি। শহরে মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ হাজার ৬ জন। অন্যদিকে চট্টগ্রামে এ পর্যন্ত ৩১৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এর মধ্যে শহরে ২১৯ জন।

জেলা সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি আরটিভি নিউজকে বলেন, শীত মৌসুম শুরু হলে করোনার প্রকোপ বাড়বে এমন আশঙ্কা আমাদের ছিল। এখন সেটাই দেখছি। আমাদের এখন প্রধান কাজ হচ্ছে করোনা প্রতিরোধের মাস্ক ব্যবহারের উপর জোর দেয়া। 

তিনি আরও বলেন, সর্তকতার পাশাপাশি হাসপাতালগুলো প্রস্তুত রয়েছে। কোন হাসপাতালই আমরা বন্ধ করেনি। তবে আক্রান্তের হার যেভাবে বাড়ছে সেভাবে রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে না। মৃত্যুহার ও এখন পর্যন্ত অনেক কম। প্রথম বারের অভিজ্ঞতার আলোকে ব্যবস্থা নিচ্ছি। 

এছাড়াও পর্যাপ্ত অক্সিজেন হাই ফ্লো নজেল কনোলাসহ পর্যাপ্ত সরঞ্জামাদি মজুদ রাখা হয়েছে। রোগী ভর্তির জন্য শয্যাও রাখা হয়েছে। প্রয়োজনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের যে আইশোলেশন সেন্টার আছে তা ব্যবহার করা হবে। সিটি কর্পোরেশন আইসোলেশন ওয়ার্ড চালু রাখবে । বর্তমান সময়ে আমরা কন্টাক্ট ট্রেসিং এর উপরে গুরুত্ব দিচ্ছি । আমাদের সক্ষমতা আগের চেয়ে ভালো । 

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য মতে, করোনার অতিমারী অর্থাৎ গত মে-জুন মাসে দিনে গড়ে ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত শনাক্ত হতো। নভেম্বরের শুরুর দিকেও শনাক্তের হার ১০ শতাংশের নিচে ছিল। এখন তা ঊর্ধ্বমুখী।

এদিকে শনাক্তের পাশাপাশি হাসপাতাল গুলোতেও রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রামের প্রধান বিশেষায়িত চিকিৎসা কেন্দ্র চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে মঙ্গলবার সকাল  পর্যন্ত রোগী ভর্তি ছিল  ৪০ জন। এর মধ্যে সাতজন ছিলেন নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ)। অথচ একমাস আগেও এই হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা  ২০ জনের মধ্যে থাকতো বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. আব্দুর রব আরটিভি নিউজকে বলেন, জেনারেল হাসপাতালে সপ্তাহ-খানেক ধরে রোগী বাড়তে শুরু করেছে। তবে আক্রান্তেরে  হারের তুলনায় রোগী ভর্তি তুলনামূলক কম। তবে সামনের দিনগুলোতে হাসপাতালে রোগীর চাপ বাড়তে পারে।

মঙ্গলবার জেলা সিভিল সার্জনের দেওয়া তথ্য মতে,আগের ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৩৩৫ টি নমুনা পরীক্ষা করে করোনা শনাক্ত করা হয়েছে ১৮৩ জনের। যার শতকরা হার ১৩ দশমিক ৭। আর এর আগের দিন  এক হাজার ২৭০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৪২ জনের কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। শতকরা হিসেবে যা পরীক্ষা করা নমুনার প্রায় ১৯ শতাংশ। 

গত ১০ দিন ধরে শনাক্তের সংখ্যা দেড়শর আশপাশে ছিল। এর মধ্যে ১৪ নভেম্বর ১৪৬ জন, ১৫ নভেম্বর ৬৩ জন, ১৬ নভেম্বর ১৮১ জন, ১৭ নভেম্বর ১৫৭ জন, ১৮ নভেম্বর ১৭৮ জন, ১৯ নভেম্বর ১৬১ জন, ২০ নভেম্বর ১৯৭ জন, ২১ নভেম্বর ১৪৫ জন এবং ২২ নভেম্বর ৬৪ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় চট্টগ্রাম জেলায়।

এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে , মে-জুন মাসে চট্টগ্রাম জেলায় করোনাভাইরাস শনাক্তের হার ছিল নমুনা পরীক্ষার প্রায় ২৮-৩০ শতাংশ। জুলাই মাসের শুরুতে তা কমে ১৯-২২ শতাংশে দাঁড়ায়। জুলাইয়ের শেষ দিকে এই হার ছিল ১১-১২ শতাংশ।  যা সেপ্টেম্বর মাসে গড়ে সাড়ে ৫ থেকে ৭ শতাংশের মধ্যে ছিল। অক্টোবর মাসের শুরুতে তা আবার বেড়ে সাড়ে ৮ থেকে সাড়ে ৯ শতাংশের মতো ছিল। গত সপ্তাহে তা বেড়ে গড়ে ১২ থেকে ১৩ শতাংশ হয়।

জিএম/জিএ 

RTV Drama
RTVPLUS