logo
  • ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

গাইবান্ধা প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৪ নভেম্বর ২০২০, ১২:২৭
আপডেট : ১৪ নভেম্বর ২০২০, ১২:৩৬

সুন্দরগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মা-ছেলে ও নাতির মৃত্যু

Mother, son and grandson, die after getting, rtv news
গাইবান্ধায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত স্বজনদের আহাজারি
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ ধোপাডাঙ্গা গ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মা-ছেলে ও নাতির মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন, ওই গ্রামের সৈয়দ আলীর স্ত্রী রেখা বেগম (৬০) ও তার ছেলে রেজাউল ইসলাম (৩০) ও নাতি সুজন মিয়া (১৬)।

ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার সন্ধ্যার সময়। এই ঘটনায় সুন্দরগঞ্জ থানায় অপমৃত্যু মামলা (ইউডি) রেকর্ড করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেডের (নেসকো) সাবেক পিডিবির একটি বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার থেকে দক্ষিণ ধোপাডাঙ্গা গ্রামের বেশ কয়েকটি বাড়িতে একসময় বিদ্যুৎ সংযোগ ছিল। কিন্তু বর্তমানে নেসকোর সেবার মান খারাপ হওয়ায় সেখানে পল্লীবিদ্যুতের সংযোগ গ্রহণ করে সবগুলো পরিবার। কিন্তু নিহতদের বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকে নেসকোর একটি সচল বৈদ্যুতিক তার।

 গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যার সময় বোরো ধানের বীজ বপন করার জন্য  জমিতে যান রেখা বেগম, রাজিউল আলম ও সুজন মিয়া। প্রথমে রাজাউল ইসলাম ওই জমিতে নামলে তিনি বিদ্যুতায়িত হন। এই ঘটনা দেখে সুজন মিয়া তাকে উদ্ধারের জন্য সেখানে গেলে তিনিও বিদ্যুতায়িত হন। সবশেষ রাজাউল ইসলাম তার মা রেখা বেগম ও নাতিকে উদ্ধারের জন্য সেখানে গেলে তিনিও বিদ্যুতায়িত হন। এই ঘটনায় স্থানীয় জনগণ গাইবান্ধা বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ অফিসে ফোন করে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার পর তাদেরকে উদ্ধার করে।

এতে ঘটনাস্থলে রেখা বেগম(৬০) ও তার ছেলে রাজাউল ইসলাম মারা যান। পরে আহতাবস্থায় সুজন মিয়াকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা হাসাপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকেও মৃত ঘোষণা করেন। এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহতদের পরিবারের লোকদের আহাজারিতে বাতাস ভাড়ি হয়ে উঠে। খবর পেয়ে হাজার হাজার মানুষ গতকাল রাত থেকে তাদের দেখতে আসেন।

 ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. মোখলেছুর রহমান রাজু বলেন, বাঁশের খুঁটি দিয়ে ওই গ্রামে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) বর্তমানে নেসকো ওই গ্রামে বিদ্যুতের সংযোগ দিয়েছিল।

ওই গ্রামটিতে সম্প্রতি পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ দেওয়া হয়। কিন্তু বাঁশের খুটিটি নষ্ট হলে পিডিবির সচল লাইনটি জমিতে পড়েছিল। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ বিভাগের গাফলতির কারণে একই পরিবারের তিনজনের মৃত্যু মর্মান্তিক। যা মেনে নেয়া যায় না। তিনি আরও বলেন, ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফনের জন্য অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের অনুমোদন পাওয়া গেলে আজ শনিবার জোহরের নামাজের পর তাদের দাফন সম্পন্ন হবে।

সুন্দরগঞ্জ থানার এসআই সামছুল হক (তদন্ত)  বিদ্যুতায়িত হয়ে মা-ছেলে ও নাতির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তিনজনের মৃত্যুর ঘটনায় সুন্দরগঞ্জ থানায় অপমৃত্যু মামলা (ইউডি) রেকর্ড করা হয়েছে।

জেবি

RTVPLUS