smc
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৫ কার্তিক ১৪২৭

ফরিদপুরের বহুল আলোচিত বরকত-রুবেলের অস্ত্র মামলায় বিচার শুরু

  ফরিদপুর প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

|  ১১ অক্টোবর ২০২০, ১৬:৪৫ | আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০২০, ২৩:০৮
Sajjad Hossain Barkat and Imtiaz Hasan Rubel
সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও ইমতিয়াজ হাসান রুবেল
ফরিদপুরের বহুল আলোচিত ও বিতর্কিত রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়িত শহর আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই ফরিদপুর প্রেসক্লাবের বহিষ্কৃত সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত অস্ত্র মামলায় অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত এই অস্ত্র মামলার বিচার কাজ শুরু হলো।

রোববার (১১ অক্টোবর)  বেলা ১১টার দিকে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. সেলিম মিয়ার আদালতে অস্ত্র আইনে দায়েরকৃত পৃথক দু’টি মামলায় অভিযোগ গঠনের জন্য তাদের হাজির করা হয়।

জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারী কৌসুলি দুলাল সরকার বলেন, অস্ত্র আইনে ১৯ এর এ/২১/২৩ ধারায় দায়েরকৃত দু’টি মামলায় অভিযোগ গঠনের জন্য তাদেরকে আজ আদালতে হাজির করা হয়। এরমধ্যে ১৩/২০ নম্বর মামলার আসামি হচ্ছেন সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও ইমতিয়াজ হাসান রুবেল। এছাড়া ১৪/২০ নম্বর আরও একটি মামলায় আসামি হচ্ছেন ইমতিয়াজ হাসান রুবেল ও তার সহযোগী রেজাউল করিম বিপুল। 

সরকারি এই কৌসুলি আরও জানান, নিয়ম অনুযায়ী আসামিদের অভিযোগ পড়ে শুনিয়ে জানতে চাওয়া হয় তারা দোষী না নির্দোষ। জবাবে তারা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার চান। আদালত মামলার সাক্ষ্য শুনানির জন্য ১৩/২০ নম্বর মামলায় ২৭ অক্টোবর ও ১৪/২০ নম্বর মামলায় ২ নভেম্বর পরবর্তী তারিখ ধার্য করেন।

মামলার আসামি পক্ষের অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান বলেন, স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল মামলা নম্বর ১৩ ও ১৪ এর আসামী হিসেবে বিজ্ঞ আদালত তাদের বিরুদ্ধে ১৯ এর ‘এ’ এবং ‘এফ’ ধারায় এবং একইসাথে ২১ এবং ২৩ ধারায় অভিযোগ গঠন করেছেন। তিনি বলেন, আমরা এই মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন জানালে আদালত তা খারিজ করে দেন।  

উল্লেখ্য, গত ৭ জুন রাতে শহরের বদরপুর হতে ৯ জন সহযোগীসহ গ্রেপ্তার করা হয় সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও রুবেলকে। এসময় তাদের নিকট হতে নগদ টাকা, মাদকদ্রব্য ও বিভিন্ন মালামালসহ ম্যাগাজিন ও গুলিসহ সাতটি অস্ত্র জব্দ করা হয়। পরের দিন ৮ জুন কোতোয়ালী থানার এসআই সাখাওয়াত হোসেন ও এসআই আব্দুল জব্বার বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করেন। এ দু’টি মামলার তদন্ত শেষে ২৭ জুন ও ৩০ জুন আদালতে অভিযোগ-পত্র দাখিল করা হয়। 

এছাড়া বিভিন্ন অপরাধে তাদের বিরুদ্ধে মোট ১১টি মামলা দায়ের করা হয়। অস্ত্র আইনের ১৯ (এ) ধারায় দায়ের করা এই মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে সবোর্চ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।

জিএম

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ৪০৩০৭৯ ৩১৯৭৩৩ ৫৮৬১
বিশ্ব ৪,৪৩,৫৭,৬৭১ ৩,২৫,০৫,১৫৫ ১১,৭৩,৮০৮
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়